kalerkantho


পাকিস্তানের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের আলোচনা বাতিল করল ভারত

দিল্লির ‘নেতিবাচক, উদ্ধত’ জবাবে হতাশ ইমরান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



দিল্লির ‘নেতিবাচক, উদ্ধত’ জবাবে হতাশ ইমরান

পাকিস্তানের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের আলোচনা বাতিল করেছে ভারত। নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের ফাঁকে এ বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। দুই পরমাণু শক্তিধর প্রতিবেশীর মধ্যে আলোচনা শুরুর ব্যাপারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রস্তাব দিয়ে চিঠি দেওয়ার বিষয়টি প্রকাশের মাত্র এক দিনের মাথায় গত শুক্রবার বাতিল করার বিষয়টি জানা গেল। ইমরান ভারতের এই আচরণকে ‘নেতিবাচক, উদ্ধত’ বলে মন্তব্য করে হতাশা প্রকাশ করেছেন।

এক টুইটে পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী গতকাল শনিবার বলেন, ‘শান্তি সংলাপ আবারও শুরু করার ব্যাপারে আমার আহ্বানে ভারতের নেতিবাচক, উদ্ধত জবাবে হতাশা বোধ করছি। তবে আমি সারা জীবনই দেখেছি, ছোট মনের মানুষরাই উঁচু পদগুলো দখল করে বসে আছে।’

এর আগে ভারত গত শুক্রবার দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের মধ্যে বৈঠক বাতিল করে দেয়। এর মাত্র এক দিন আগেই বৈঠকের ব্যাপারে সবুজ সংকেত দেখিয়েছিল তারা। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠীর হাতে নৃশংসভাবে আমাদের নিরাপত্তারক্ষীর হত্যা এবং সম্প্রতি সন্ত্রাস ও এক সন্ত্রাসীর প্রশংসা করে পাকিস্তানের ধারাবাহিক ডাকটিকিট প্রকাশের প্রেক্ষাপটে’ বৈঠক বাতিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে আরো বলা হয়, সাম্প্রতিক এই তৎপরতা পাকিস্তানের ‘শয়তানি কর্মসূচি’ এবং দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ‘প্রকৃত চেহারা’ উন্মোচন করেছে।

তবে ঠিক কোন হত্যাকাণ্ডের কারণে ভারত এই বৈঠক বাতিল করল তা স্পষ্ট নয়। গত সপ্তাহে বিতর্কিত কাশ্মীর ভূখণ্ডে ভারতের এক সীমান্তরক্ষীকে শিরশ্ছেদ করা হয়। গত শুক্রবারও ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে অপহৃত তিন পুলিশের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ভারত দীর্ঘদিন থেকেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীগুলোকে অস্ত্র সরবরাহের অভিযোগ করে আসছে। পাকিস্তান সম্প্রতি বুরহান ওয়ানি নামের কাশ্মীরি এক জঙ্গি কমান্ডারের ছবি ব্যবহার করে ডাকটিকিট প্রকাশ করে। ২০১৬ সালের জুলাই মাসে ভারতীয় সেনাদের গুলিতে বুরহান ওয়ানি নিহত হন।

ভারতের এই কঠোর অবস্থানের পর পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতি বলা হয়, ‘ভারতীয় নিরাপত্তারক্ষীদের হত্যার সঙ্গে পাকিস্তানের কোনো সম্পর্ক নেই। ভারত ইচ্ছাকৃতভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও বিদ্বেষপরায়ণ প্রচারণা চালাচ্ছে।’ তারা আরো জানায়, ভারতের এ সিদ্ধান্ত অবিবেচনাপ্রসূত এবং কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

নিউ ইয়র্কে সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের ফাঁকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ও পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশির মধ্যে বৈঠকের বিষয়টি গত বৃহস্পতিবারই নিশ্চিত করা হয়। একই দিন জানা যায়, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দ্বিপক্ষীয় আলোচনা শুরুর আহ্বান জানিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে একটি চিঠি দিয়েছেন। ‘মোদি সাহাব’ সম্বোধন করে লেখা এই চিঠিতে ইমরান দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের মধ্যে আলোচনা শুরুর আরজিও জানান। শপথ নিয়েই ইমরান বলেছিলেন, ভারত এক কদম এগোলে পাকিস্তান দুই পা এগোবে। এবার সেটাই যেন প্রমাণের চেষ্টা করলেন ইমরান খান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে একটি চিঠি পাঠিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। সেই চিঠির জবাবে ক্রিকেটার-রাজনীতিবিদ ইমরান গত ১৪ সেপ্টেম্বর এই চিঠি পাঠান। সূত্র : এএফপি, টাইমস অব ইন্ডিয়া।



মন্তব্য