kalerkantho


শরণার্থী আশ্রয়ে আরো কঠোর হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



শরণার্থীদের আশ্রয়ের বিষয়ে আরো কঠোর হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। আগামী বছর রেকর্ডসংখ্যক কম শরণার্থীকে আশ্রয় দেবে দেশটি। ২০১৭ সালে যেখানে ৫০ হাজার শরণার্থী আশ্রয় দিয়েছিল তারা সেখানে ২০১৮ সালে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে আশ্রয় পেয়েছিল ৪৫ হাজার। আর ২০১৯ সালে ৩০ হাজার শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে তারা। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এ ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, এর পাশাপাশি দুই লাখ ৮০ হাজারেরও বেশি আশ্রয়প্রার্থীর আবেদন পর্যালোচনা করে দেখা হবে।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বরের হামলার পরের বছর, অর্থাৎ ২০০২ সালে সবচেয়ে কমসংখ্যক শরণার্থী যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় পেয়েছিল। সে সময় ২৭ হাজার ১৩১ জন শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছিল দেশটি। তবে গত এক দশকে শরণার্থী আশ্রয়ের সংখ্যাটা ব্যাপকহারে ওঠানামা করেছে। যেমন ২০০৭ সালে শরণার্থী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় পেয়েছিল ৪৮ হাজার ২৮২ জন। অন্যদিকে ২০১৬ সালে আশ্রয় পাওয়া শরণার্থীর সংখ্যা ছিল ৮৪ হাজার ৯৯৫ জন।

১৯৮০ সালে শরণার্থী আশ্রয় দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। গত সোমবার প্রকাশিত নিউ ইয়র্ক টাইমসের তথ্য অনুসারে শরণার্থী আশ্রয় দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরুর পর থেকে এই প্রথম কোনো প্রেসিডেন্টের নির্দিষ্ট করে দেওয়া শরণার্থীর সংখ্যা এটাই সর্বনিম্ন। রিফিউজিস ইন্টারন্যাশনালের প্রেসিডেন্ট এরিক শোয়ার্জ শরণার্থী সংখ্যার নতুন সংখ্যাকে উদ্বেগজনক বলেছেন। সূত্র : ???????



মন্তব্য