kalerkantho


আহমদিয়া অর্থনীতিবিদকে অপসারণ

পাকিস্তানে নতুন সরকারের সমালোচনায় জেমিমাও

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



পাকিস্তানে নতুন সরকারের সমালোচনায় জেমিমাও

পাকিস্তানে কট্টরপন্থীদের চাপের মুখে নবগঠিত অর্থনৈতিক উপদেষ্টা পরিষদ (ইএসি) থেকে বিশ্বখ্যাত তরুণ অর্থনীতিবিদ আতিফ মিয়াকে আহমদিয়া বিশ্বাসের কারণে অপসারণ করায় তীব্র সমালোচনা শুনতে হচ্ছে নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সরকারকে। এই সমালোচনায় যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সাবেক স্ত্রী জেমিমা গোল্ডস্মিথও। গত শুক্রবার এক টুইট বার্তায় তিনি পাকিস্তান সরকারের সিদ্ধান্তকে অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে পড়াশোনা করা এবং বর্তমানে প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত আতিফ মিয়াকে সম্প্রতি পাকিস্তানের নবগঠিত অর্থনৈতিক উপদেষ্টা পরিষদে নিয়োগ দেওয়া হয়। কিন্তু এরপরই তীব্র প্রতিবাদ শুরু করে তেহরিক-ই লাব্বাইকসহ পাকিস্তানের বিভিন্ন ইসলামী দলগুলো। এ অবস্থায় নিয়োগ দেওয়ার এক সপ্তাহের মাথায় গত শুক্রবার আতিফ মিয়াকে ইএসি থেকে অপসারণ করার কথা জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, পাকিস্তানের ‘ঐক্য’ বজায় রাখতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আতিফ মিয়াকে অপসারণের প্রতিবাদে ওই দিনই নতুন সরকারের ইএসি থেকে পদত্যাগ করেন পরিষদের সদস্য হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের অধ্যাপক ড. অসিম ইজাজ খাজা। এর পরের দিন শনিবার পদত্যাগ করেন পরিষদের সদস্য লন্ডনভিত্তিক গবেষক ড. ইমরান রাসুল। এ ছাড়া পাকিস্তানের গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও নতুন সরকারের এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা হচ্ছে।

পাকিস্তানে পরিবর্তনের বার্তা দিয়ে আসা ইমরান খানের সরকারের এই সমালোচনায় যোগ দিলেন ইমরানের দুই সন্তানের মা জেমিমাও। যদিও নির্বাচনে জয়লাভ করার পর ইমরান খানের প্রশংসা করেছিলেন তিনি।

জেমিমা গোল্ডস্মিথ (৪৪) তাঁর টুইট বার্তায় বলেন, ‘অগ্রহণযোগ্য এবং খুবই হতাশাজনক। নতুন পাকিস্তান সরকার বিখ্যাত ও সম্মানিত অর্থনীতির অধ্যাপককে পদত্যাগ করতে নির্দেশ দিয়েছে তাঁর আহমদিয়া বিশ্বাসের কারণে।’ এরপর তিন বিশেষ দ্রষ্টব্য হিসেবে উল্লেখ করেন, ‘পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা কায়েদে আজম (মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ) একজন আহমদিয়াকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিলেন।’

পাকিস্তানে আহমদিয়া সম্প্রদায়কে মুসলমান হিসেবে মানতে নারাজ সুন্নি মুসলমানরা। দেশটিতে প্রায় পাঁচ লাখ আহমদিয়া মতে বিশ্বাসী বসবাস করে। পাকিস্তানি আইন অনুযায়ী তারা তাদেরকে মুসলিম হিসেবে পরিচয় দিতে পারে না। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।



মন্তব্য