kalerkantho


রিও ডি জেনেইরোর মিউজিয়ামে আগুন

বাঁচল না ব্রাজিলের প্রথম মানব জীবাশ্মটিও

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বাঁচল না ব্রাজিলের প্রথম মানব জীবাশ্মটিও

ব্রাজিলের রিও ডি জেনেইরোর ন্যাশনাল মিউজিয়ামে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় সরকারের প্রতি বিক্ষুব্ধ মানুষ সোমবার কুইন্তা দা বোয়া ভিস্তা পার্কের গেটে জড়ো হয়। ছবি : এএফপি

ব্রাজিলের রিও ডি জেনেইরোর পুড়ে যাওয়া ন্যাশনাল মিউজিয়াম পুনর্নির্মাণের জন্য তহবিল সংগ্রহের কাজ শুরু করেছে সরকার। দেশটির প্রেসিডেন্ট মিচেল তেমের এরই মধ্যে তিনি বিভিন্ন ব্যাংক এবং সংস্থার কাছে অর্থ সহায়তা চেয়েছেন। শিক্ষামন্ত্রী রোসিয়েলি সোয়ারেস বলেছেন, আন্তর্জাতিক সহযোগিতার জন্য সন্ধান চলছে। এ ছাড়া জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক অঙ্গসংগঠন ইউনেসকোর সঙ্গেও আলোচনা চলছে।

গত রবিবার বড় ধরনের অগ্নিকাণ্ডে রিও ডি জেনেইরোর ২০০ বছরের পুরনো ন্যাশনাল মিউজিয়ামটি পুড়ে যায়। লাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বেশি প্রাকৃতিক ইতিহাসসমৃদ্ধ মিউজিয়াম ছিল এটি। গত জুনে মিউজিয়ামটির ২০০ বছর পূর্তি উদ্‌যাপন করা হয়।

মিউজিয়ামটিতে প্রায় দুই কোটি ধরনের জিনিস সংরক্ষিত ছিল। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মিউজিয়ামের সংগ্রহশালার ৯০ শতাংশ ধ্বংস হয়ে গেছে। লাতিন আমেরিকায় এটা ছিল নৃ-বিদ্যা এবং প্রাকৃতিক ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সংগ্রহশালা। এখানে ছিল ১২ হাজার বছরের পুরনো ‘লুজিয়া’ নামের এক নারীর জীবাশ্ম। শুধু তাই নয়, এটা ছিল ব্রাজিলে পাওয়া প্রথম জীবাশ্ম। আগুনে সেটাও পুড়ে গেছে। ১৯৭০ সালে ব্রাজিলের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মিনাস গেরাইস রাজ্যে এটা পাওয়া গিয়েছিল। ন্যাশনাল মিউজিয়ামের পরিচালক পাওলো কানাউস বলেছেন, ‘সভ্যতার বিষয়ে যাদের কৌতূহল রয়েছে তাদের জন্য লুজিয়াকে হারানো অমূল্য ক্ষতি।’ এদিকে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ হিস্টোরিক অ্যান্ড আর্টিস্টিক হেরিটেজের প্রেসিডেন্ট কাতিয়া বোগিয়া আক্ষেপ করে বলেন, ‘আগুনে পুড়ে লুজিয়া মারা গেছে।’ এ ঘটনার জন্য তিনি অর্থ সংকটকে দায়ী করেন। তিনি বলেন, অনেক বছর ধরেই এই অর্থ সংকট রয়েছে। এটা পুরনো এক সমস্যা। কিন্তু এখন আমাদের অতীত নিয়ে কথা বলা বন্ধ করতে হবে বরং ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবতে হবে।

মিউজিয়ামের সহকারী পরিচালক লুইজ ফার্নান্দো ডায়াস ডুয়ার্তে এ ঘটনায় প্রচণ্ড ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এবং মিউজিয়ামটির দিকে প্রয়োজনীয় মনোযোগ না দেওয়ায় কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, আগুনে পুড়ে যা ধ্বংস হয়ে গেল তার সব কিছু সংরক্ষণের জন্য বিভিন্ন সরকারের সময় আমরা লড়াই করেছি। গত জুনে আধুনিক অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ মিউজিয়ামের উন্নয়নের লক্ষ্যে ৫৩ লাখ ডলারের একটা বাজেট বরাদ্দ হয়েছিল। কিন্তু তার সব কিছু হবে অক্টোবরের নির্বাচনের পর।

ব্রিটেনের ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা লুজিয়ার মাথার খুলি ব্যবহার করে তার মুখমণ্ডলের একটা আকার দিতে সমর্থ হয়েছিলেন। মিউজিয়ামে লুজিয়ার ভাস্কর্য প্রদর্শনের জন্য এটি ব্যবহার করা হতো। রবিবার রাতের আগুনে এটিও পুড়ে গেছে।

সূত্র : এএফপি।



মন্তব্য