kalerkantho


চীন ও উত্তর কোরিয়ার হুমকি মোকাবেলা

প্রতিরক্ষা খাতে রেকর্ড বরাদ্দ করছে জাপান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



উত্তর কোরিয়া ও চীনের হুমকি মোকাবেলায় প্রতিরক্ষা খাতে এযাবৎকালের সবচেয়ে বেশি অর্থ বরাদ্দ করতে যাচ্ছে জাপান। তাদের লক্ষ্য—ক্ষেপণাস্ত্র ও বিমান শক্তি বাড়ানো। আগামী এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া নতুন অর্থবছরের জন্য প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ৫ দশমিক ২৯৮ ট্রিলিয়ন ইয়েন বা ৪৭ বিলিয়ন ডলার চেয়েছে। এই অর্থ গত বছরের তুলনায় ২.১ শতাংশ বেশি। এ নিয়ে টানা সাত বছরের মতো প্রতিরক্ষা বাজেটে অর্থ বরাদ্দ বেড়েই চলেছে।

প্রতিরক্ষাব্যবস্থা উন্নয়নের জন্য মন্ত্রণালয় যেসব অস্ত্র কেনার তালিকা করেছে তাদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি দুই সেট এজিস অ্যাশোর ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা অস্ত্র রয়েছে। উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র মোকাবেলার জন্য ২৩৪ দশমিক ৩ বিলিয়ন ইয়েনে এই অস্ত্র কেনার পরিকল্পনা করেছে জাপান। এ ছাড়া ছয়টি এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান, দুটি ই-টুডি হকআই রাডার এবং মেরিটাইম এয়ারক্রাফট কেনার পরিকল্পনা নিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

অর্থ বরাদ্দের এই অনুরোধ মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক প্রতিরক্ষা মূল্যায়ন প্রতিবেদনে জোর আলোচনা হয়। তবে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই বছরের শুরুতে দুই কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি সত্ত্বেও উত্তর কোরিয়ার এখনো বড় ধরনের হুমকি হয়ে আছে।

এ বছরের জুন মাসে সিঙ্গাপুরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জনং উনের মধ্যে বৈঠকের পর কোরিয়া উপদ্বীপকে নিরস্ত্রীকরণের একটা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে আবার উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর পূর্বনির্ধারিত উত্তর কোরিয়া সফর বাতিল করেছেন।

প্রতিরক্ষা মূল্যায়নে প্রতিবেদনে চীনের সামরিক শক্তির উত্থান নিয়েও আলোচনা হয়। জাপানসহ এই অঞ্চলের দেশগুলো এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জন্য বড় ধরনের নিরাপত্তা হুমকি হয়ে দেখা দিচ্ছে বলে মূল্যায়ন প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

চীন গত মার্চ মার্সে প্রতিরক্ষা বাজেটে ৮.১ শতাংশ বাড়িয়ে ১৭৫ বিলিয়ন ডলার করেছে। বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামরিক শক্তি হওয়ার লক্ষ্য নিয়েই চীন তার অস্ত্র ভাণ্ডারের আধুনিকীকরণ করে চলেছে।

সূত্র : এএফপি।



মন্তব্য