kalerkantho


তোপের মুখে সুর বদলালেন ট্রাম্প

‘ভুল বলেছিলাম, তবে বৈঠক থেকে বড় সাফল্য আসবে’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



‘ভুল বলেছিলাম, তবে বৈঠক থেকে বড় সাফল্য আসবে’

২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছিল বলে গোয়েন্দা সংস্থার বক্তব্য মেনে নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও মাত্র এক দিন আগেও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট অভিযোগটি নাকচ করে দিয়েছিলেন। তিনি গতকাল বুধবার বলেন, ‘সোমবারের বক্তব্যে ভুল বলেছিলাম।’ আসলে ট্রাম্প বলতে চেয়েছিলেন, রাশিয়া ওই নির্বাচনে ভূমিকা রেখেছে, সেটা মনে না করার কোনো কারণ নেই। যদিও এখনো তিনি মনে করেন, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে তাঁর বৈঠকটি দীর্ঘ সময়ের জন্য বড় ধরনের সাফল্য হিসেবে বিবেচিত হতে পারে।

এক সংবাদ সম্মেলনে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ওপর তাঁর পূর্ণ বিশ্বাস ও সমর্থন রয়েছে। যদিও তিনি পুতিনের নিন্দা জানাবেন কি না, সেই প্রশ্নের কোনো জবাব দেননি ট্রাম্প।

ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিংকিতে পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের পর একজন সাংবাদিক জানতে চান, ‘২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে কোনো ধরনের ভূমিকা থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রেসিডেন্ট পুতিন। যদিও সব মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা জানতে পেরেছে যে রাশিয়ার ভূমিকা ছিল। আপনি কাকে বিশ্বাস করেন?’

উত্তরে ট্রাম্প বলেন, ‘আমার লোকজন আমার কাছে এসেছিল; তারা বলেছে, তারা মনে করে রাশিয়ার ভূমিকা ছিল। প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে, তিনি বলেছেন, এটা রাশিয়ার কাজ নয়। আমি বলব, আমি এমন কোনো কারণ দেখতে পাই না যে তারা কেন এটা করবে।’

ট্রাম্প বলছেন, তিনি পুরো ঘটনার বর্ণনা পর্যালোচনা করে দেখেছেন এবং একটি ব্যাখ্যা দেওয়া দরকার বলে মনে করেন। তিনি বলেন, ‘আমার বক্তব্যে একটি প্রধান বাক্যে আমি বলেছিলাম, তারা (রাশিয়া) কেন এটা করবে? আসলে সেটা হওয়ার কথা, তারা কেন করবে না? বাক্যটা হওয়ার কথা এমন, আমি এমন কোনো কারণ দেখতে পাই না, কেন এটা রাশিয়া হবে না?’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরো যোগ করেন, ‘আমাদের গোয়েন্দারা যে সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের নির্বাচনে রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছে, সেই সিদ্ধান্ত আমি গ্রহণ করেছি। হয়তো আরো অনেকেই করেছেন, করার মতো আরো অনেকেই রয়েছেন।’ যদিও ওই হস্তক্ষেপে নির্বাচনে কোনো প্রভাব পড়েনি বলে মনে করেন ট্রাম্প।

গত সোমবারের ওই শীর্ষ বৈঠকের পর রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট, দুপক্ষই ট্রাম্পের সমালোচনা করে বলে, নিজের গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের বাদ দিয়ে ট্রাম্প রাশিয়ার পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। অনেক আইন প্রণেতা আরো আহত হয়েছেন এ কারণে যে রাশিয়া ও পুতিনের বিষয়ে নির্দিষ্ট সমালোচনা করতে রাজি হননি ট্রাম্প।

যদিও ট্রাম্প এখন ভুলের কথা বলছেন, কিন্তু ক্ষতি যা হওয়ার হয়ে গেছে। হোযাইট হাউস এখন যতই বিবৃতি দিক না কেন পুতিনের পাশে দাঁড়িয়ে বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি আটকে গিয়েছিলেন। কোনো ব্যাখ্যাই সেটা আর পাল্টাতে পারবে না।

এদিকে গতকাল সকালে এক টুইটে ট্রাম্প বলেন, ‘ন্যাটো বৈঠককে সাফল্য হিসেবে দেখা হচ্ছে। সদস্য রাষ্ট্রগুলো আরো কয়েক বিলিয়ন ডলার দ্রুততম সময়ের মধ্যে দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে। তবে রাশিয়ার বিষয়টি দীর্ঘ মেয়াদে আরো বড় সাফল্য হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে। এই বৈঠক থেকে বহু ইতিবাচক বিষয় বের হয়ে আসতে পারে। মস্কো উত্তর কোরিয়া প্রসঙ্গে আমাদের সাহায্য করতে রাজি হয়েছে।’ টুইটে ট্রাম্প আরো বলেন, ‘উচ্চ বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন বহু মানুষ হেলসিংকিতে আমার সংবাদ সম্মেলন খুবই পছন্দ করেছেন। তবে ঘৃণাকারীরা বিষয়টি পছন্দ করেননি। তাঁরা একটি বক্সিং ম্যাচ দেখতে চেয়েছিলেন।’ তিনি বলেন, ‘এই সম্মেলন থেকে বড় সাফল্য আসবে।’

সূত্র : বিবিসি, এএফপি।

 



মন্তব্য