kalerkantho


কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন বিজেপির ইয়েদুরাপ্পা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ মে, ২০১৮ ০০:০০



কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন বিজেপির ইয়েদুরাপ্পা

ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন বিজেপির বিএস ইয়েদুরাপ্পা। গতকাল তাঁকে শপথবাক্য পাঠ করান কর্ণাটকের রাজ্যপাল বজুভাই ভালা। তাঁকে ১৫ দিনের মধ্যে বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রামাণ দিতে হবে।

ইয়েদুরাপ্পা শপথ নিলেও রাজ্যটিতে রাজনৈতিক টানাপড়েন শেষ হয়নি। এদিন বিধানসভার বাইরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছে কংগ্রেস এবং জনতা দল-সেক্যুলার জেডি (এস)। রাজ্যপালের বিরুদ্ধাচরণ করে তারা বলছে, সরকার গঠনের প্রয়োজনীয় সংখ্যা থাকলেও তাদের সরকার গড়ার সুযোগ দেওয়া হয়নি। কংগ্রেস ও জেডি (এস)-এর আশঙ্কা, ১৫ দিন সময় পেয়ে যাওয়ায় তাদের বিধায়কদের ভাঙিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করবে বিজেপি। এক টুইটে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী বলেছেন, ‘ভারতের সংবিধান নিয়ে উপহাস করল বিজেপি। অন্তঃসারশূন্য বিজয় নিয়ে যখন উৎসব পালন করছে বিজেপি, সেই সময় দেশের মানুষ কিন্তু গণতন্ত্রের ওপর আঘাতের ঘটনায় শোক পালন করছে।’

সুপ্রিম কোর্ট গতকাল দিবাগত মধ্যরাতে প্রায় নজিরবিহীন শুনানিকে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী পদে ইয়েদুরাপ্পার শপথে স্থগিতাদেশ দিতে অস্বীকার করেন। বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী বি এস ইয়েদুরাপ্পাকে গত বুধবার রাত ৯টায় চিঠি পাঠান কর্ণাটকের রাজ্যপাল বজুভাই বালা। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় শপথগ্রহণ করতে বলা হয়। তার এক ঘণ্টার মধ্যেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় কংগ্রেস এবং জেডি (এস)। আর্জি দ্বিবিধ। এক. বৃহস্পতিবারের শপথগ্রহণের ওপরে স্থগিতাদেশ দেওয়া হোক। দুই. গরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য ইয়েদুরাপ্পাকে যে ১৫ দিন সময় রাজ্যপাল দিয়েছেন, তা কমানো হোক। আর্জির গুরুত্ব বিবেচনা করে রাতেই শুনানিতে রাজি হন শীর্ষ আদালত। প্রধান বিচারপতির সঙ্গে কথা বলার পর স্থানীয় সময় রাত দেড়টা নাগাদ আদালত বসে। শুনানির পর সুপ্রিম কোর্ট শপথে স্থগিতাদেশ দিতে অস্বীকার করেন। তবে শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় ফের এই মামলার শুনানি হবে। সূত্র : আনন্দবাজার।

 



মন্তব্য