kalerkantho


প্রামাণ্যচিত্রে পুতিন

যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত করার নির্দেশ দিয়েছিলাম

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত করার নির্দেশ দিয়েছিলাম

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ২০১৪ সালে যাত্রীবাহী একটি বিমান ভূপাতিত করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। অবশ্য যে খবরের ভিত্তিতে তিনি নির্দেশটি দিয়েছিলেন, সেটি মিথ্যা হওয়ায় শেষমেশ বিমানটি ভূপাতিত করা হয়নি। নতুন একটি প্রামাণ্যচিত্রে খোদ পুতিনই এ তথ্য জানিয়েছেন।

আগামী ১৮ মার্চ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। ওই নির্বাচনকে সামনে রেখেই সম্প্রতি দুই ঘণ্টার প্রামাণ্যচিত্রটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছাড়া হয়। ‘পুতিন’ নামের প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণ করা হয়েছে মূলত রুশদের উদ্দেশ্য করেই। সেখানে রুশ প্রেসিডেন্ট কথা বলেছেন সাংবাদিক আন্দ্রে কন্দ্রাশোভের সঙ্গে। এই সাংবাদিক পুতিনের নির্বাচনী প্রচার দলের প্রেস সেক্রেটারির দায়িত্বে আছেন।

২০১৪ সালে শীতকালীন অলিম্পিক গেমসের আসর বসে রাশিয়ার সোচিতে। বিমান ভূপাতিত করার নির্দেশ দেওয়ার ঘটনাটি ঘটে ওই গেমসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আগমুহূর্তে। প্রামাণ্যচিত্রে পুতিন বলেন, ‘আমাকে জানানো হয়, ইউক্রেন থেকে তুরস্কগামী যাত্রীবাহী একটি বিমান ছিনতাই করা হয়েছে।’

পুতিন বলেন, ‘রুশ নিরাপত্তাকর্মীরা আমাকে জানায়, এ ধরনের জরুরি পরিস্থিতি করণীয় হলো, বিমানটি ভূপাতিত করা। আমি তাদের কথামতো বিমানটি ভূপাতিত করার নির্দেশ দিই।’

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এর মিনিট কয়েক পর আমার কাছে আরেকটি বার্তা আসে। তাতে জানানো হয়, বিমান ছিনতাইয়ের খবরটি সত্যি নয়। ফলে বিমানটি ভূপাতিত করা হয়নি।’

২০১৪ সালে ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়া দখল করে নেয় রাশিয়া। প্রামাণ্যচিত্রে সাংবাদিক আন্দ্রে কন্দ্রাশোভ পুতিনকে প্রশ্ন করেন, ‘আপনার কল্পনায় এমন পরিস্থিতি আছে কি না, যে পরিস্থিতিতে আপনি ক্রিমিয়াকে ইউক্রেনের কাছে ফিরিয়ে দেবেন?’ জবাবে পুতিন বলেন, ‘আপনি এসব কী বলছেন! এ ধরনের কোনো পরিস্থিতির অস্তিত্ব বর্তমানেও নেই, ভবিষ্যতেও হবে না। আমি অনেক কিছু ক্ষমা করে দিতে পারি, কিন্তু সব কিছুই না।’ সূত্র : বিবিসি।



মন্তব্য