kalerkantho


মিয়ানমারে রাখাইন নেতার ‘রাষ্ট্রদ্রোহের’ বিচার শুরু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



মিয়ানমারে গ্রেপ্তার হওয়া রাখাইন জাতীয়তাবাদী নেতা ড. অ্যায়ে মংয়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ এনেছে সরকার। স্বাধীন রাখাইন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানানোর পর গত জানুয়ারিতে এক দাঙ্গায় সাতজনের মৃত্যুর ঘটনায় এই অভিযোগ আনে পুলিশ। গত ১৮ জানুয়ারি গ্রেপ্তার করা হয় তাঁকে। গতকাল বুধবার রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তোর একটি আদালতে তাঁকে ও জাতীয়তাবাদী লেখক ওয়াইন হিন অংকে হাজির করে মিয়ানমার পুলিশ।

অ্যায়ে মংয়ের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের এই পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার ও জাতিগত রাখাইনদের মধ্যে তিক্ততা বৃদ্ধি পেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। গতকাল অ্যায়ে মং ও ওয়াইন হিনকে আদালতে হাজির করা হলে কয়েক শ রাখাইন আদালত চত্বরে সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। মিয়ানমারবিষয়ক নিরপেক্ষ বিশ্লেষক গ্যাব্রিয়েল অ্যারন এএফপিকে বলেন, তাঁদের সাজা দেওয়া হলে সেটিকে স্থানীয় জনগণ রাখাইন দমন হিসেবেই দেখবে এবং রাজ্যের পরিস্থিতির আরেকবার অবনতি হবে।

রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে জাতিগত নিধন অভিযান চলার মধ্যেই গত ১৫ জানুয়ারি রাখাইনের রাথিডং শহরে এক সমাবেশে আরাকান রাজতন্ত্র পতনের ২০০তম বার্ষিকী উপলক্ষে সরকারের বিরুদ্ধে জ্বালাময়ী ভাষণ দেন অ্যায়ে মং। ‘ভাষণে তিনি রাখাইন বৌদ্ধদের প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের দুর্বলতার সুযোগ নেওয়ার আহ্বান জানান এবং সার্বভৌমত্ব রাখাইন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান। এ সময় তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে রাখাইন জনগণকে ‘দাস’ হিসেবে দেখা হচ্ছে হচ্ছে বলে অভিযোগ এনে বলেন, ‘এখনই রাখাইনদের সশস্ত্র সংগ্রামের উপযুক্ত সময়’। এরপর ১৬ জানুয়ারি রাখাইন বৌদ্ধরা ‘আরাকান রাজত্ব ধ্বংসের ২০০ বার্ষিকী পালনে বাধা দেওয়ার অভিযোগে রাজ্যের একসময়কার রাজধানী এমরুক-ইউ শহরের সরকারি অফিসে হামলা চালায়। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য