kalerkantho


পাকিস্তান সিনেটের নিয়ন্ত্রণ নওয়াজের দলের হাতে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



পদ হারানো সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ক্ষমতাসীন দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছে। শনিবার সিনেটের ৫২টি আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে পিএমএল-এন ১৫টি আসনে জয় পায়। সিনেটের মোট আসনসংখ্যা ১০৪টি। শনিবারের ১৫টি আসন নিয়ে পিএমএল-এনের আসনসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৩টিতে।

পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশন (ইসিপি) জানিয়েছে, ৫২ সিনেটরের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর শনিবার পাঞ্জাব ও সিন্ধুর ১২টি করে, খাইবার পাখতুনখোয়া ও বেলুচিস্তানের ১১টি করে এবং উপজাতীয় অঞ্চলের চারটি এবং কেন্দ্রীয় সরকারশাসিত অঞ্চলগুলো থেকে দুটি আসনে শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিলে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ১৩০ জন। শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। ফলাফলে দেখা যায়, পিএমএল-এন পাঞ্জাব থেকে ১১টি আসন এবং খাইবার পাখতুনখোয়া ও কেন্দ্রীয় সরকারশাসিত অঞ্চল থেকে দুটি করে আসন পায়। তাদের মোট প্রার্থীর সংখ্যা ছিল ২৩ জন। সিনেটে শরিকদের নিয়ে পিএমএল-এনের আসন দাঁড়াল ৪৮-তে।

নির্বাচনে পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) পেয়েছে ১২টি আসন। এর মধ্যে সিন্ধু থেকে ১০টি এবং খাইবার পাখতুনখোয়া থেকে দুটি আসন পেয়েছে তারা। সিনেটে ২১ আসন নিয়ে এখন তাদের অবস্থান দ্বিতীয়। ক্রিকেটের মাঠ থেকে রাজনীতিতে আসা ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) পেয়েছে ছয়টি আসন। এর মধ্যে পাঁচটি খাইবার পাখতুনখোয়া ও একট পাঞ্জাব থেকে। তাদের মোট আসন হলো ১২টি। এ ছাড়া ১০টি আসন পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। বাকি ৯টি আসন পেয়েছে বিভিন্ন ছোটখাটো দল।

ফল ঘোষণার পর শরিফের মেয়ে মরিয়ম শরিফ এক টুইটে বলেন, ‘এখন সিনেটেও পিএমএল-এন একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল।’ প্রসঙ্গত, পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ প্রাদেশিক পরিষদের নিয়ন্ত্রণও তাদের হাতে।

অন্যদিকে পিপিপিপ্রধান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি টুইট বার্তায় বলেন, ‘এটা গণতন্ত্রের বিজয়।’

যদিও পিটিআইপ্রধান ইমরান অভিযোগ করেছেন যে ভোটে জালিয়াতি হয়েছে। ব্যাপক অর্থ ছড়ানো হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। সূত্র : দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া।


মন্তব্য