kalerkantho


ভারতে ‘অসম্মানের’ পর এবার ‘অস্বস্তিতে’ ট্রুডো

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ভারত সফরে গিয়ে ‘অসম্মানের’ পর ‘অস্বস্তিতে’ পড়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এই অস্বস্তির মূলে রয়েছেন হত্যাচেষ্টার দায়ে সাজাপ্রাপ্ত চরমপন্থী এক শিখ নেতা। বলা হচ্ছে, বিতর্কিত ওই নেতাকে ট্রুডোর সম্মানে আয়োজিত এক নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানিয়েছে নয়াদিল্লিতে অবস্থিত কানাডার হাইকমিশন; যদিও হাইকমিশন পরে ওই আমন্ত্রণ বাতিল করে দেয়।

ট্রুডোর সফরকে ভারত যথাযথ মর্যাদা দিচ্ছে না—এমন সমালোচনার মধ্যেই নতুন করে এই বিতর্ক সৃষ্টি হলো। সাত দিনের সফরে গত শনিবার ভারতে পৌঁছেন ট্রুডো। মন্ত্রী-এমপিদের পাশাপাশি তাঁর সফরসঙ্গী হিসেবে আছেন স্ত্রী ও তিন সন্তানও। তবে সফরসঙ্গীদের মধ্যে জাসপাল আতওয়াল নামের ওই শিখ নেতাও আছেন কি না, তা নিশ্চিত করেনি দিল্লির কানাডীয় হাইকমিশন।

ইন্টারন্যাশনাল শিখ ইয়ুথ ফেডারেশনের সাবেক নেতা জাসপাল আতওয়াল কানাডায় থাকেন। ১৯৮৬ সালে সেখানে এক ভারতীয় মন্ত্রীর ওপর গুলি চালান তিনি। এরপর ওই ঘটনায় কানাডার আদালতে ২০ বছরের কারাদণ্ড হয় তাঁর। তবে বর্তমানে তিনি কানাডার রাজনীতিতে যুক্ত বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

এনডিটিভির খবর অনুযায়ী, গত মঙ্গলবার মুম্বাইয়ে একটি অনুষ্ঠানেও আমন্ত্রণ জানানো হয় আতওয়ালকে। সেখানে তিনি অংশগ্রহণও করেন। ওই অনুষ্ঠানে ট্রুডোর স্ত্রী সোফি ট্রুডো এবং কানাডার এক মন্ত্রীর সঙ্গে ছবিও তোলেন তিনি। পরে সেসব ছবি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লিতে কানাডীয় হাইকমিশনে নৈশভোজেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল ওই শিখ নেতাকে। কিন্তু সমালোচনার মুখে হাইকমিশন ওই আমন্ত্রণ বাতিল করে দেয়। এক বিবৃতিতে তারা বলে, ‘হাইকমিশন জাসপাল আতওয়ালের নিমন্ত্রণ বাতিল করেছে। এ ধরনের ব্যক্তিকে আমন্ত্রণ জানানো সমীচীন নয়। তার পরও কিভাবে তিনি আমন্ত্রণ পেলেন, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

এদিকে আজ শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে ট্রুডোর। তবে ট্রুডোর সফরের শুরু থেকেই সমালোচনা চলছে যে ভারত তাঁকে যথাযথ সম্মান দিচ্ছে না। বিশেষ করে বিমানবন্দরে ট্রুডোকে গ্রহণ করতে যাননি মোদি। এমনকি উচ্চপর্যায়ের কাউকেও পাঠানো হয়নি। এ ছাড়া ট্রুডোর গুজরাট সফরের সময়ও মোদি তাঁকে সঙ্গ দেননি।

উল্লেখ্য, অন্য অনেক দেশের মতো কানাডায়ও ইন্টারন্যাশনাল শিখ ইয়ুথ ফেডারেশনের শাখা রয়েছে। কানাডার বিরুদ্ধে ভারত সরকারের অভিযোগ, তারা শিখদের ব্যাপারে খুবই নমনীয় মনোভাব দেখায়। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য