kalerkantho


আরেকটি বিপ্লবের আগেই জনতার দাবি শুনতে হবে : রুহানি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ইরানের সাম্প্রতিক অস্থিতিশীলতার পেছনে যারা ছিল, তাদের দাবিদাওয়া পূরণে মনোযোগী না হলে আরেকটি বিপ্লব হতে পারে—এমন মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। ইরানে ১৯৭৯ সালের বিপ্লবের ৩৯তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে গতকাল বুধবার দেওয়া ভাষণে তিনি এ সতর্কবার্তা দেন।

প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে গত মাসের শুরুর দিকে ইরানে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভে ২৫ জন নিহত হয়। কারাবন্দি করা হয় কয়েক শ লোককে। ওই অস্থিতিশীলতার প্রসঙ্গে প্রেসিডেন্ট রুহানি গতকাল বলেন, ‘জনগণের দাবি ও আকাঙ্ক্ষা শোনার মতো কান দেশের সব কর্মকর্তার থাকা উচিত। রাজধানী তেহরানের দক্ষিণে আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনির মাজার প্রাঙ্গণে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ‘আগের সরকার ভেবেছিল, রাজতন্ত্রের শাসন চিরজীবন বহাল থাকবে। কিন্তু জনগণের সমালোচনা শোনেনি বলেই তারা সব হারিয়েছে।’

চার দশক আগের অভ্যুত্থানে রাজতন্ত্রের পতনের কথা স্মরণ করে রুহানি বলেন, ‘তারা সংস্কারক, উপদেষ্টা, পণ্ডিত, অভিজাত ও শিক্ষিতদের কথা কানে তোলেনি। তারা কেবল শুনতে পেয়েছে বিপ্লবের কণ্ঠস্বর। আর ততক্ষণে বড্ড দেরি হয়ে গেছে।’

প্রেসিডেন্ট রুহানির এ সতর্কবার্তার আগের দিন ইরানের কারারুদ্ধ সংস্কারপন্থী নেতা মেহদি কারুবি বলেন, ‘খুব বেশি দেরি হয়ে যাওয়ার আগেই’ ব্যাপক সংস্কার আনা দরকার। দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়তুল্লাহ আলী খামেনির উদ্দেশে লেখা খোলা চিঠিতে কারুবি এ কথা লেখেন। সংস্কারপন্থী আন্দোলনের জন্য কারারুদ্ধ করার আগে কারুবিকে সাত বছর গৃহবন্দি রাখা হয়।

সূত্র : এএফপি।

 



মন্তব্য