kalerkantho


অনিশ্চয়তা কাটিয়ে সিউলে উ. কোরিয়ার প্রতিনিধিদল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



অনিশ্চয়তা কাটিয়ে সিউলে উ. কোরিয়ার প্রতিনিধিদল

দক্ষিণ কোরিয়ায় আসন্ন শীতকালীন অলিম্পিকে উত্তর কোরিয়ার ২২ অ্যাথলেটের অংশগ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ‘ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি’ (আইওসি)। দক্ষিণ কোরিয়া জানিয়েছে, এই অংশগ্রহণ দুই কোরিয়ার মধ্যকার উত্তেজনা কমানোর পাশাপাশি শান্তি আলোচনায় ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

এদিকে উত্তর কোরিয়ার সাত শিল্পীর একটি প্রতিনিধিদলের সিউল (দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী) সফর নিয়ে যে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছিল, তা অবসান হয়েছে। গতকাল রবিবার প্রতিনিধিদলটি সিউলে পৌঁছেছে।

আগামী ৯ থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ কোরিয়ায় শীতকালীন অলিম্পিকের আসর বসবে। তাতে উত্তর কোরিয়া অংশগ্রহণ করবে কি না, তা নিয়ে সপ্তাহ দুয়েক আগে বৈঠকে বসেন দুই কোরিয়ার কর্মকর্তারা। দুই বছরেরও বেশি সময় পর তাদের মধ্যে ওই বৈঠক হয়। তাতে খেলোয়াড়, শিল্পীসহ বড় একটি প্রতিনিধিদল পাঠাতে রাজি হয় পিয়ংইয়ং। এমনকি অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এক পতাকা নিয়ে হাঁটতে রাজি হয় তারা।

ওই বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গতকাল উত্তর কোরিয়ার সাত শিল্পীর একটি দল দুই দিনের সফরে সিউল পৌঁছেছে। দলের নেতৃত্বে আছেন উত্তর কোরিয়ার জনপ্রিয় ‘মোরানবং’ ব্যান্ডের তারকা হিওন সং-ওল। অলিম্পিকের যেসব ভেন্যুতে দুই কোরিয়ার শিল্পীদের যৌথভাবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করার কথা, সেগুলো পরিদর্শন করতেই এ সফর করছেন তাঁরা। অবশ্য গত শনিবার পিয়ংইয়ং (উত্তর কোরিয়ার রাজধানী) হঠাৎ করেই সফরটি স্থগিত করে দিয়েছিল।

এএফপির খবরে বলা হয়, গতকাল সকালে প্রতিনিধিদলটি বাসে করে দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রবেশ করে। এরপর কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে তাদের নেওয়া হয় সিউল রেলস্টেশনে। সেখান থেকে তারা যায় পূর্বাঞ্চলীয় গাংনিয়াং শহরে। সেখানে দুই কোরিয়ার শিল্পীরা যৌথভাবে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার কথা।

উল্লেখ্য, চার বছরেরও বেশি সময় পর এই প্রথম উত্তর কোরিয়ার কোনো কর্মকর্তা দক্ষিণ কোরিয়ায় গেলেন।

এদিকে সিউলকে ‘ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি’ (আইওসি) নিশ্চিত করেছে, পিয়ংইয়ং অলিম্পিকে ২২ অ্যাথলেটের একটি দল পাঠাবে। প্রতিক্রিয়ায় দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট দপ্তর (ব্লু হাউস) এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘এই অংশগ্রহণ দুই কোরিয়ার মধ্যকার উত্তেজনা কমানোর পাশাপাশি শান্তি আলোচনার ক্ষেত্রে অনুঘটক হিসেবে কাজ করবে। প্রেসিডেন্ট (দক্ষিণ কোরিয়ার) মুন এর আগেও জোর দিয়ে বলেছেন, পিয়ংইয়ংয়ের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে সৃষ্ট সংকট নিরসনে অলিম্পিক গেমস একটা বাঁক বদলের সূত্র হিসেবে কাজ করতে পারে।’ সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।



মন্তব্য