kalerkantho


নেতানিয়াহুকে ‘বুকে জড়িয়ে’ অভ্যর্থনা মোদির

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



নেতানিয়াহুকে ‘বুকে জড়িয়ে’ অভ্যর্থনা মোদির

সম্পর্ক উন্নয়নে ছয় দিনের ভারত সফরে গিয়ে বিমানবন্দরে ‘প্রটোকল ভাঙা’ উষ্ণ অভ্যর্থনা পেলেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। গতকাল রবিবার নয়াদিল্লির ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেতানিয়াহুকে বুকে জড়িয়ে ধরে অভ্যর্থনা জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এর আগে গত জুলাইয়ে প্রথম ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদি ‘ঐতিহাসিক’ ইসরায়েল সফরে গিয়ে নেতানিয়াহুকে বুকে জড়িয়ে ধরে আলোড়ন ফেলেছিলেন।

গতকাল নেতানিয়াহুর পাশাপাশি তাঁর স্ত্রী সারাকেও বিমানবন্দরে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান মোদি। এ সময় নেতানিয়াহুর সঙ্গে একটি বড় ব্যবসায়ী দলও ছিল। পরে দুই নেতা নিহত ভারতীয় সেনাদের স্মরণে দিল্লির তিন মূর্তি চক স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা জানান। এ সময় স্মৃতিস্তম্ভটির নাম পরিবর্তন করে ‘তিন মূর্তি হাইফা চক’ করা হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ইসরায়েলের হাইফা শহর মুক্ত করতে গিয়ে নিহত সেনাদের স্মরণে ওই স্মৃতিস্তম্ভটি নির্মিত।

নেতানিয়াহু এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এই সফর বৈশ্বিক অর্থনীতি, নিরাপত্তা, প্রযুক্তি ও পর্যটন খাতে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধিতে সুযোগ তৈরি করেছে। ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মোদি ইসরায়েল ও আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধু।’ সফরে জ্বালানি, বিমান চলাচল, সিনেমা প্রডাকশনসহ বেশ কিছু চুক্তির ব্যাপারে আশাবাদী তিনি।

অন্যদিকে মোদি টুইট বার্তায় বলেন, ‘বন্ধু, আপনাকে স্বাগত। আপনার এই সফর ঐতিহাসিক ও স্মরণীয় ঘটনা। এই সফর দুই দেশের মধ্যকার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ককে আরো দৃঢ় করবে।’

সফরকালে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে নেতানিয়াহুর নৈশভোজ ও বৈঠকের কথা রয়েছে। এ ছাড়া তাজমহল ও মোদির রাজ্য গুজরাট পরিদর্শন এবং মুম্বাইয়ে বলিউড তারকাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন তিনি। পাশাপাশি ২০০৮ সালে মুম্বাই হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধার অংশ হিসেবে ইহুদি সম্প্রদায়ের সঙ্গে তিনি সাক্ষাৎ করবেন।

যদিও এই সফর নিয়ে চলতি মাসে এক ধরনের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। ইসরায়েলের রাষ্ট্রীয় সংস্থা রাফায়েলের কাছ থেকে ট্যাংক প্রতিরোধী আট হাজার ক্ষেপণাস্ত্র ক্রয়ের চুক্তি থেকে ভারত সরে গেলে এই সংকট দেখা দেয়। ভারতের রাষ্ট্রীয় প্রতিরক্ষা সংস্থা একই ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র স্থানীয়ভাবে তৈরির প্রস্তাব দেওয়ার পর দিল্লি চুক্তি থেকে সরে যায়। ইসরায়েলকে দেওয়া ৫০০ মিলিয়ন ডলার মূল্যের ওই কার্যাদেশের বিষয়ে কিভাবে সমাধানে আসা যায়, এ নিয়ে ভারতের সেনাবাহিনী ও দেশটির সরকারের মধ্যে আলোচনা চলছে।

ইসরায়েল থেকে গড়ে প্রতিবছর এক বিলিয়ন ডলার মূল্যের সামরিক সরঞ্জাম আমদানি করে থাকে ভারত। প্রতিরক্ষা আমদানিকারক হিসেবে বিশ্বে ভারতের অবস্থান শীর্ষে। তবে এই অবস্থান থেকে সরিয়ে নিজেদের সক্ষমতা বাড়াতে চাইছেন মোদি।

নেতানিয়াহুর এই সফর গত ১৫ বছরের মধ্যে কোনো ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর প্রথম সফর। এর আগে ২০০৩ সালে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথমবারের মতো অ্যারিয়েল শ্যারন ভারত সফর করেন।

সূত্র : এএফপি, টাইমস অব ইন্ডিয়া।



মন্তব্য