kalerkantho


পাকিস্তানের ‘রাগ’ কমানোর চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সামরিক অনুদান বন্ধ করা নিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে যে টানাপড়েন তৈরি হয়েছে, তা প্রশমনের চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র। গত কয়েক দিনে মার্কিন কর্মকর্তারা পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীকে আশ্বস্ত করেছেন, অনুদান বন্ধের সিদ্ধান্ত ‘সাময়িক’। এ ছাড়া পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র একতরফা কোনো সিদ্ধান্ত নেবে না।

গত শুক্রবার পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়, গত এক সপ্তাহে মার্কিন কেন্দ্রীয় কমান্ডের প্রধান জেনারেল জোসেফ ভোটেল একাধিককার তাঁদের সামরিক প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়াকে ফোন করেছেন। এ ছাড়া এক মার্কিন সিনেটরও তাঁকে ফোন করেছেন বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

ওই বিবৃতি অনুযায়ী ভোটেল পাকিস্তানের সামরিক প্রধানকে বলেছেন, ট্রাম্পের যে ঘোষণা নিয়ে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে, অনুদান বন্ধের সেই ঘোষণা আসলে সাময়িক ব্যাপার। উল্লেখ্য, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে প্রতিবছর পাকিস্তানকে মোটা অঙ্কের সামরিক অনুদান দেয় যুক্তরাষ্ট্র; কিন্তু পাকিস্তান আফগান তালেবানসহ ইসলামপন্থী জঙ্গিদের সহযোগিতা করছে—এমন অভিযোগ তুলে গত সপ্তাহে সেই অনুদান বন্ধের ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর বিবৃতি অনুযায়ী, ভোটেল বলেছেন, সন্ত্রাস দমনে পাকিস্তানের যে ভূমিকা, তা যুক্তরাষ্ট্র সব সময় স্বীকার করে। আর অনুদান বন্ধের সিদ্ধান্ত সাময়িক একটা ব্যাপার। ভোটেল আরো আশ্বস্ত করেন, পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ কোনো ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র কখনোই একতরফা কোনো সিদ্ধান্ত নেবে না।

বিবৃতি অনুযায়ী বাজাওয়া মার্কিন কমান্ডারকে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তকে পুরো পাকিস্তান বিশ্বাসঘাতকতা হিসেবে দেখছে। তার পরও বলির পাঠা বানানো হলেও পাকিস্তান সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে নিজেদের ভূমিকা অব্যাহত রাখবে। তিনি আরো বলেন, পাকিস্তান অনুদানের অর্থ চায় না; কিন্তু সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যে অবদান, সেটির মূল্যায়ন চায়। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য