kalerkantho


আট বছরের মেয়েকে ধর্ষণের পর হত্যা

বিক্ষোভে উত্তাল পাকিস্তানের কাসুর, নিহত ২

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আট বছরের এক শিশুকন্যাকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের কাসুর এলাকা। গতকাল বুধবার বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে দুজন। এমন পরিস্থিতিতে ধর্ষিত ও নিহত ওই কন্যাশিশু জয়নবের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন দ্রুত দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। এসংক্রান্ত মামলাটি প্রাদেশিক সরকার আমলে নিয়েছে জানিয়ে জনতাকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন পাঞ্জাবের আইনমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ।

জয়নব গত বৃহস্পতিবার বাড়ির কাছের কোচিং সেন্টারে পড়তে গিয়ে আর বাসায় ফেরেনি। পরদিন তার নিখোঁজের ব্যাপারে এফআইআর করেন তার চাচা। জয়নবের স্বজনরা জানায়, তার মা-বাবা ওমরাহ করতে গিয়েছিলেন, যাঁরা গতকাল দেশে ফেরেন।

পুলিশ গত মঙ্গলবার শহরের শাহবাজ খান রোডের আবর্জনার স্তূপ থেকে জয়নবের মৃতদেহ উদ্ধার করে। প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে কাসুরের আঞ্চলিক পুলিশ কর্মকর্তা জুলফিকার মুহাম্মদ নিশ্চিত করেছেন, শ্বাসরোধে জয়নবকে হত্যা করা হয়েছে। এটাকে পুলিশ সিরিয়াল কিলিং অভিহিত করছে। তবে তারা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার আগে জয়নবের ধর্ষণের ব্যাপারটি নিশ্চিত করে বলছে না।

ময়নাতদন্ত শেষে এরই মধ্যে শিশুটির লাশ স্বজনদের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে জয়নবের বাবা বলেছেন, ন্যায়বিচার নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত তিনি মেয়ের লাশ দাফন করবেন না। তাঁর অভিযোগ, হত্যাকারীরা শনাক্ত হওয়ার পরও পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করছে না।

জয়নব হত্যাকাণ্ডসহ গত এক বছরে কাসুরের মাত্র দুই কিলোমিটারের মধ্যে একই ধরনের ১২টি হত্যাকাণ্ড ঘটল। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী গতকাল সব কাজ বন্ধ করে জয়নবের লাশ নিয়ে বিক্ষোভ করে। তারা পুলিশ ও স্থানীয় পার্লামেন্ট সদস্যদের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। লাঠিসোঁটা আর পাথর নিয়ে তারা ডেপুটি কমিশনারের কার্যালয়ে হামলা চালায়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে দুই বিক্ষোভকারী নিহত ও দুজন আহত হয়। সূত্র : ডন।



মন্তব্য