kalerkantho


তালেবানের সাবেক জিম্মি গ্রেপ্তার

১৫ অভিযোগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আফগানিস্তানে তালেবানদের হাতে পাঁচ বছর জিম্মি থাকা কানাডীয় নাগরিক জোশুয়া বয়েলকে সে দেশের পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি, অবৈধ বন্দিত্ব, হত্যার হুমকি দেওয়াসহ ১৫টি অভিযোগ আনা হয়েছে বলে মঙ্গলবার কানাডার সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে।

জোশুয়া দেশের ফেরার পর গত ১ জানুয়ারি অভিযোগগুলো আনা হয়। তিনি গত অক্টোবরে আমেরিকান স্ত্রী কেইটল্যান কোলম্যান, তিন সন্তানসহ মুক্তি পান। বন্দি অবস্থায়ই তাঁদের তিন সন্তানের জন্ম হয়।

সংবাদমাধ্যম জানায়, জোশুয়ার বিরুদ্ধে হামলার ঘটনায় আটটি, যৌন হয়রানির ঘটনায় দুটি, অবৈধ বন্দিত্বের কারণে দুটি এবং পুলিশকে ভুল তথ্য প্রদানের জন্য একটি, মৃত্যুর হুমকি দেওয়ার জন্য একটি ও অন্যের জন্য ক্ষতিকর পদার্থ বহনের জন্য একটি অভিযোগ আনা হয়েছে।

বিবিসিকে পাঠানো এক মেইলে জোশুয়ার আইনজীবী এরিক গ্রাঙ্গার বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে জোশুয়া নিরপরাধ। তিনি আগে কখনো সমস্যা করেননি। তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের প্রমাণপত্র সরবরাহ করা হয়নি, অথচ এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা প্রমাণপত্র পাওয়ার অপেক্ষা করছি। তারপর আমরা তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের বিরুদ্ধে লড়ব। বুধবার (গতকাল) তাঁকে আদালতে হাজির করার কথা রয়েছে।’

২০১২ সালে আফগানিস্তান ভ্রমণের সময় স্ত্রী কেইটল্যানসহ তাঁকে তালেবানরা অপহরণ করে। পরবর্তী সময়ে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকা তালেবানদের হাক্কানি গ্রুপের হাতে তাঁদের হস্তান্তর করা হয়। ১২ অক্টোবর বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেলেও তাঁরা যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর বিমানে চড়তে অস্বীকৃতি জানান। জোশুয়া পরবর্তী সময়ে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করেন এবং গুয়ানতানামোর বন্দি ওমর খাদিরের মুক্তির জন্য দীর্ঘদিন কাজ করেন। ওমর খাদির ১৫ বছর বয়সে ২০০২ সালে আফগানিস্তানে ধরা পড়ার পর গুয়ানতানামো বেতে আটক ছিলেন। পরে তাঁকে কানাডায় পাঠানো হয় এবং সেখান থেকে মুক্তি পান।

গত বছরের অক্টোবর মাসে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী স্ত্রী, তিন সন্তানসহ জোশুয়াকে উদ্ধার করে। তাঁদের বড় ধরনের এক অভিযানের মাধ্যমে উদ্ধার করা হয়েছিল বলে জানিয়েছিল পাকিস্তানের সেনাবাহিনী।

টরন্টোতে পৌঁছানোর দুই দিন পর জোশুয়া বন্দিদশা থাকাবস্থায় অপহরণকারীদের বিরুদ্ধে তাঁর স্ত্রীকে যৌন নির্যাতন এবং তাঁর এক কন্যাসন্তানকে হত্যার করার অভিযোগ করেছিলেন। তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ এ অভিযোগ অস্বীকার করেন। তবে একটি সন্তানের মৃত্যুর কথা স্বীকার করেন এবং বলেন ‘স্বাভাবিক এক দুর্ঘটনায় সন্তানের মৃত্যু হয়েছিল।’ সূত্র : এএফপি।



মন্তব্য