kalerkantho


মি টুর পর টাইমস আপ

যৌন হেনস্তা রোধে নতুন আন্দোলন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



যৌন হেনস্তা রোধে নতুন আন্দোলন

২০১৭ সালে যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের সবচেয়ে বড় মাধ্যম হয়ে ওঠে হ্যাশট্যাগ দিয়ে ‘মি টু’র ব্যবহার। সেই দৃঢ় অবস্থানকে ধরে রেখে সিনেমাপাড়া আর কর্মক্ষেত্রে হেনস্তার শিকারদের সহায়তা দিতে নতুন এক উদ্যোগ নিয়ে মাঠে নেমেছেন হলিউডের তিন শতাধিক অভিনেত্রী, লেখক আর পরিচালক। তাঁদের এ উদ্যোগের নাম ‘টাইমস আপ’।

বছর শুরুর দিনটিতে নিউ ইয়র্ক টাইমসে পৃষ্ঠাজুড়ে বিজ্ঞাপন দিয়ে এ উদ্যোগের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হয়। হলিউডের এই প্রকল্পকে বর্ণনা করা হচ্ছে অনেকটা এভাবে যে ‘বিনোদন জগতের নারীদের তরফ থেকে সব নারীর জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে পরিবর্তনের আহ্বান।’

এই উদ্যোগের প্রতি সমর্থন জানানো অভিনেত্রীদের মধ্যে রয়েছেন নাটালিয়ে পোর্টম্যান, রিজ উইথারস্পুন, কেট ব্ল্যানশেট, ইভা লঙ্গোরিয়ে ও এমা স্টোন। এই উদ্যোগে এখন পর্যন্ত এক কোটি ৩০ লাখ ডলার তহবিল সংগ্রহ হয়েছে। লক্ষ্য দেড় কোটি ডলার। এই তহবিল দিয়ে কর্মক্ষেত্রে হেনস্তার শিকার নারী এবং একই অভিযোগ থাকা পুরুষদের আইনি লড়াইয়ে সহযোগিতা করা হবে। কৃষিকাজ, কারখানা বা রেস্তোরাঁয় ওয়েট্রেসদের মতো কর্মজীবী নারীদের পক্ষে অনেক সময়ই আইনি লড়াইয়ের অর্থ সংগ্রহ করা সম্ভব হয় না। তাদেরই আর্থিক সহযোগিতা দেবে টাইমস আপ।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রকাশিত বিজ্ঞাপনে যে ‘সংহতিপত্র’ দেওয়া হয়েছে তাতে বলা হয়, ‘প্রতিজন নারী, যারাই যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছে তারা জানিয়েছে, প্রতিকার নেই বলেই এসব চলছে। কুকর্ম যারা করে তাদের এবং নিয়োগকর্তাদের কখনোই পরিণতি ভোগ করতে হয় না।’ এই প্রচলিত ঘেরাটোপ ভাঙবে টাইমস আপ।

সূত্র : বিবিসি।



মন্তব্য