kalerkantho

আমরা যা যা দেখব

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আমরা যা যা দেখব

নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে ফিলিস্তিনি এক শিল্পী গাজার সমুদ্রতটে বালু দিয়ে লেখা ‘২০১৮’ কে রাঙিয়ে দেন রং দিয়ে। গতকাল তোলা ছবি। ছবি : এএফপি

সূর্যের চারপাশে আরেকটি আবর্তন শুরু করলাম আমরা। যেমনই যাক, ২০১৭ সম্পন্ন। অনেক সম্ভাবনা আর প্রত্যাশার ২০১৮-র চাকা ঘুরতে শুরু করেছে। এখন যদি চরম নৈরাশ্যবাদী কেউ আপনার সামনে দাঁড়িয়ে বলে, ‘আরো গোটা একটা বছর বাঁচতে হবে!’ তাহলে তাদের হাতে এ বছরের সম্ভাবনাময় ঘটনাগুলোর একটি তালিকা ধরিয়ে দিতে পারেন। কী থাকবে তালিকায়—সেই চমৎকার, উদ্ভাবনী বিষয়গুলো নিয়েই এ আয়োজন।

মানুষ চাঁদে বেড়াতে যাবে

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান সিলিকন ভ্যালি ‘মুন এক্সপ্রেস’ চালু করতে যাচ্ছে। পর্যটক পেটে নিয়ে রকেট নামবে চাঁদে। লোকজনকে চাঁদে বেড়ানোর সুযোগ দেওয়ার পাশাপাশি সেখানে খনিজ অনুসন্ধান শুরুর ইচ্ছাও ওই কম্পানিটির আছে।

ক্যান্সার রোগীদের মাথা ঠাণ্ডা করার টুপি

ক্যান্সারের যেসব রোগী কেমোথেরাপি নিচ্ছেন তাঁদের জন্য এই বিশেষ ব্যবস্থাটি যুক্তরাষ্ট্রে অনুমোদন পাবে মে মাসে। এই টুপি পরতে হবে কেমোর আগে, চলার সময় এবং পরে। এই টুপি মাথা ঠাণ্ডা রাখার পাশাপাশি কেমোর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় চুল ওঠাও কমাবে। চিকিৎসাক্ষেত্রে এ বছরের অন্যতম বড় ঘটনা হতে যাচ্ছে এটি।

অ্যান্টার্কটিকায় বাণিজ্যিক বিমান

গেল বছরও অ্যান্টার্কটিকায় যেতে বিমান ভাড়া করতে হতো। সেই অতিরিক্ত খরচের সময় এবার শেষ হতে চলেছে। ভ্রমণপিপাসুদের জন্য প্রথমবারের মতো অ্যান্টার্কটিকায় বাণিজ্যিক ফ্লাইট শুরু হতে যাচ্ছে। পেঙ্গুইনদের জন্য দারুণ খবর এটি! দলে দলে পর্যটক যাবে আর লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়বে ওই এলাকার জমির দাম।

টাইটানিক দর্শন

ডুবে যাওয়া টাইটানিক নিয়ে এখনো লোকের মধ্যে আগ্রহ আছে। বিশেষ করে লিওনার্দো দ্য ক্যাপ্রিও এবং কেট উইন্সলেট অভিনীত ছবিটি মুক্তির পর থেকে এ নিয়ে আদিখ্যেতা দেখানোর লোকের সংখ্যা বেশ বেড়েছে। এই আগ্রহের কথা মাথায় রেখেই টাইটানিকের ধ্বংসাবশেষ দেখানোর ব্যবস্থা করেছে ব্লু মার্বেল প্রাইভেট নামের পর্যটন সংস্থা। সমুদ্রের নিচে টাইটানিক দেখতে গুনতে হবে এক লাখ ডলার।

রাজপুত্রের বিয়ে

ব্রিটিশ প্রিন্স হ্যারি এবং আক্ষরিক অর্থেই যুক্তরাষ্ট্রের স্বপ্নকন্যা অভিনেত্রী মেগান মার্কেলের আংটি বদলের খবর নতুন নয়। তাঁদের যুগল জীবনে প্রবেশের ঘটনা ঘটবে আগামী মে মাসে। আর রাজপরিবারের বিয়ে মানেই দারুণ ধুমধাড়াক্কা। এর মধ্যেই বিয়ে নিয়ে বহু বিতর্কের জন্ম হয়েছে। মেগানের মিশ্র বর্ণ, ডিভোর্সি স্ট্যাটাস, নারীবাদী অবস্থান থেকে তাঁর পোশাক নির্বাচন নিয়েও কথা বলতে ছাড়েনি মানুষ। বিতর্ক রয়েছে ওই বিয়েতে তাঁরা কাকে কাকে দাওয়াত দেবেন তা নিয়েও। সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা কি দাওয়াত পাচ্ছেন? যদি রাজপরিবার থেকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও ডাকা হয় তাহলে বর্তমান-সাবেকের মধ্যে স্নায়ুযুদ্ধ বেধে যাবে না তো? সূত্র : সিএনএন।


মন্তব্য