kalerkantho


পর্তুগালে দাবানলে ৬২ জনের মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ জুন, ২০১৭ ০০:০০



পর্তুগালে দাবানলে ৬২ জনের মৃত্যু

পর্তুগালে পদ্রোগাওতে ব্যাপক দাবানলে পোড়া একটি গাড়ি। ছবি : এএফপি

পর্তুগালের মধ্যাঞ্চলে দাবানলে কমপক্ষে ৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন,  রাজধানী লিসবন থেকে ২০০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে পদ্রোগাও গ্রান্দে জেলায় বনে আগুন লাগার পর গাড়ি দিয়ে পালানোর সময় দাবানলের কবলে পড়ে এদের অনেকেই মারা যায়।

তারা গাড়ি থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন।

দাবানলে আরো ৫৯ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েকজন ফায়ার সার্ভিসকর্মী এবং একজন আট বছরের শিশু রয়েছে। ছয় ফায়ার সার্ভিসকর্মীর অবস্থা গুরুতর।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কস্তা বলেছেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে ভয়াবহতম এ ট্র্যাজেডি দেখতে হলো আমাদের। ’ দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, নিহতদের মধ্যে ৩০ জন তাদের গাড়ির ভেতরে বদ্ধ অবস্থায় আগুনে পুরে মারা যায়। তিনজনের মৃত্যু হয়েছে ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে। গাড়ির বাইরে পাওয়া যায় আরো ১৭ জনের মৃতদেহ।

বনে কী কারণে আগুন লাগল সে বিয়য়ে এখনো কিছু জানা যায়নি। গত রাতে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণ আসেনি। প্রচণ্ড তাপ ও প্রবল বাতাসের কারণে শনিবার বিকেলের দিকে দাবানল আরো তীব্র হয়ে ওঠে। এই দাবানল পর্তুগালে গত কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী আগুনে পরিণত হয়েছে।

দেশটির সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ছয় শর মতো ফায়ার সার্ভিসকর্মী কাজ করছে। আহতদের মধ্যে আট বছর বয়সী শিশুটিকে আগুনের কাছের একটি জায়াগা থেকে উদ্ধার করেন কর্মীরা। ছয় ফায়ার সার্ভিসকর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন। দুজন ফায়ার সার্ভিসকর্মী নিখোঁজ বলে জানাচ্ছে পর্তুগালের রাষ্ট্রীয় কর্তৃপক্ষ। সূত্র : এএফপি, বিবিসি, রয়টার্স।

 

 


মন্তব্য