kalerkantho


ট্রাম্পকে জার্মানি

‘আমাদের কাছে ন্যাটোর কোনো পাওনা নেই’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



‘আমাদের কাছে ন্যাটোর কোনো পাওনা নেই’

সামরিক জোট ন্যাটোর কাছে দেনা থাকা নিয়ে ট্রাম্পের তোলা অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে জার্মানি। গত রবিবার দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী উরসুলা ফন দার লিয়েন বলেছেন, জার্মানির কাছে ন্যাটোর কাছে মোটা অঙ্কের দেনা আছে—এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন।

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের সঙ্গে সম্প্রতি এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘আমি ন্যাটোর প্রতি সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করছি। সেই সঙ্গে আহ্বান জানাচ্ছি, সদস্য দেশগুলো যেন ন্যাটোতে তাদের প্রতিশ্রুত অর্থ পরিশোধ করে। ’ তিনি আরো বলেন, ‘গত কয়েক বছরে অনেক সদস্য দেশের কাছে ন্যাটোর মোটা অঙ্কের অর্থ পাওনা হয়েছে, যা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি অন্যায়। ওই দেশগুলোর উচিত, দ্রুত এই দেনা পরিশোধ করা। ’ গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, দেনাদার দেশ হিসেবে জার্মানির কথাও উল্লেখ করেছেন ট্রাম্প।

মূলত ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিবৃতি দেন লিয়েন। তাতে তিনি বলেন, ‘জার্মানির কাছে ন্যাটোর কোনো পাওনা নেই। এ ছাড়া প্রতিরক্ষা খাতের অংশ হিসেবে জার্মানি শুধু ন্যাটোতেই অর্থ বরাদ্দ ২ শতাংশ বাড়াতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ—এমন তথ্যও ঠিক নয়। আমাদের প্রতিরক্ষা খাতের অর্থ জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন, ইউরোপীয় মিশন এবং আইএসবিরোধী লড়াইয়েও ব্যয় হয়।

তবে লিয়েনের বিবৃতিতে একটা বিষয় ভুলভাবে উপস্থাপন হয়েছে। কারণ ন্যাটোতে জার্মানি ২ শতাংশ অর্থ বরাদ্দ বাড়াতে চেয়েছে, এমন কথা ন্যাটো বলেনি। ২৮ দেশের এই জোটের বার্ষিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জার্মানি ২০১৬ সালে তাদের জিডিপির ১.২ শতাংশ প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয় করেছে। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ‘যুক্তরাষ্ট্র, গ্রিস, পোল্যান্ড, এস্তোনিয়া ও যুক্তরাজ্য—এই পাঁচটি দেশ ন্যাটোতে প্রতিশ্রুত অর্থ পরিশোধ করেছে। যদিও কয়েকটি দেশ প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, ২০২৪ সালের মধ্যে তারা প্রতিরক্ষা খাতে জিডিপির ২ শতাংশ অর্থ ব্যয় করবে। ’ সূত্র : সিএনএন।


মন্তব্য