kalerkantho


নারদাকাণ্ডে ফেঁসে যেতে পারেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক, কলকাতা   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ভারতের নারদা নিউজের আলোচিত ভিডিও ফুটেজ গতকাল শনিবার নিজেদের হেফাজতে নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করেছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই)। এর ফলে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেসের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী নেতা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে ফেঁসে যেতে পারেন বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তৃণমূলের কয়েকজন নেতা জানিয়েছেন, এ ঘটনায় কিভাবে দলের ভাবমূর্তি রক্ষা করা যায়, তা নিয়ে দলনেত্রী পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে আলোচনা চলছে। তাঁরা আরো জানান, নারদা নিউজের ফুটেজ প্রকাশের পর ঘুষ গ্রহণে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তৃণমূলের অন্দরে নেতিবাচক মনোভাব তৈরি হয়েছে। এমন নেতাদের মধ্যে রয়েছেন আট বছর কারাভোগের পর সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া মদন মিত্র, সংসদ সদস্য ও মহিলা তৃণমূলের সভানেত্রী ডা. কাকলি ঘোষ দস্তিদার, সংসদ সদস্য অধ্যাপক সৌগত রায়, বর্ষীয়ান নেতা সুব্রত মুখোপাধ্যায়। শেষের দুজন ফুটেজগুলো জাল বলে দাবি করলেও ফরেনসিক পরীক্ষার পর আদালত ওই ফুটেজ জাল নয় বলে রায় দেন।

গতকাল দিল্লি থেকে কলকাতায় পৌঁছানো দুর্নীতি দমন কমিশনের শীর্ষ তিন কর্মকর্তা ও কলকাতার সিবিআইয়ের শীর্ষ চার কর্মকর্তার সমন্বয়ে গঠিত একটি দল নারদার ফুটেজ বিশ্লেষণ শুরু করেছে। আগামী মঙ্গলবার তারা এসংক্রান্ত প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন কলকাতা হাইকোর্টে জমা দেবে বলে জানা গেছে। ওই দিন প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন প্রদানের পাশাপাশি আদালতের কাছে এ ঘটনায় মামলা করার অনুমতিও চাইতে পারে সিবিআই। মামলা করা হলে অভিযুক্তদের নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা জানিয়েছেন। সেটা ঘটলে তৃণমূল কংগ্রেস বেকায়দায় পড়বে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।


মন্তব্য