kalerkantho


ট্রাম্পের অভিবাসীবিরোধী পদক্ষেপ

স্থগিতাদেশ চ্যালেঞ্জ বিচার বিভাগের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দ্বিতীয় দফায় প্রণীত অভিবাসীবিরোধী নির্বাহী আদেশটি বহাল রাখতে গত শুক্রবার মেরিল্যান্ডের আদালতে আবেদন জানিয়েছেন বিচার বিভাগ। সংশ্লিষ্ট এ আদালত দুই দিন আগে ট্রাম্পের ওই আদেশের বৈধতার প্রশ্ন তুলে তা স্থগিত করেন। একই দিন হাওয়াইয়ের একটি আদালতও ওই ব্যাপারে স্থগিতাদেশ দেন।

ইরাক, ইরান, সিরিয়া, সোমালিয়া, সুদান, লিবিয়া ও ইয়েমেনের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞাসংক্রান্ত প্রথম নির্বাহী আদেশটি আসে গত জানুয়ারিতে। প্রেসিডেন্ট পদে ট্রাম্পের অভিষেকের পরপরই স্বাক্ষরিত ওই আদেশটি আদালতের রায়ে স্থগিত হয়ে যায়। অভিযোগ ছিল, এ আদেশ মুসলিমবিরোধী এবং তা সংবিধান লঙ্ঘন করেছে। এসংক্রান্ত মামলার নিষ্পত্তি না করে ট্রাম্প গত ৬ মার্চ সংশোধিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেন, যেখানে ইরাককে তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়। এ আদেশটিও মুসলিমদের প্রতি বৈষম্যমূলক উল্লেখ করে দুই দিন আগে এটি স্থগিত করেন মেরিল্যান্ড ও হাওয়াইয়ের দুটি আদালত। যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ মেরিল্যান্ডের গ্রিনবেল্টের ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে গতকাল ওই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের আবেদন জানান। এ মামলা পরবর্তী সময়ে ভার্জিনিয়ার রিচমন্ডে ফেডারেল আপিল আদালতে স্থানান্তরিত হবে। প্রসঙ্গত, বেশ কয়েকটি শরণার্থী সংস্থার পক্ষে মেরিল্যান্ডের আদালতে মামলাটি করেছে আমেরিকান সিভিল লিবার্টিজ ইউনিয়ন।

এদিকে হাওয়াইয়ের আদালতে শুনানিকালে ভারপ্রাপ্ত সলিসিটর জেনারেল জেফরি ওয়াল বলেন, ‘এই (প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের) আদেশে কোনো রকম ধর্মবৈষম্য টানা হয়নি। ’ শুনানিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারকালে ট্রাম্পের কট্টর মুসলিমবিরোধিতার প্রসঙ্গ উঠে আসে। নির্বাচনী প্রচারে ট্রাম্প বলেছিলেন, প্রেসিডেন্ট হলে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের প্রবেশ বন্ধ করে দেবেন। ট্রাম্পের ওই বক্তব্যের প্রসঙ্গ হাওয়াইয়ের আদালতের শুনানিতে উঠে এলে সরকারপক্ষের আইনজীবী জেফরি ওয়াল বলেন, ‘একজন প্রেসিডেন্ট ও একজন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর মধ্যে পার্থক্য আছে। ’ সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য