kalerkantho


এরদোয়ান বললেন

স্রেব্রেনিচার গণহত্যার জন্য ডাচরা দায়ী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান বলেছেন, ফ্যাসিজমের আত্মা ইউরোপের পথে পথে ছুটে বেড়াচ্ছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ইহুদিদের ওপর যে নির্যাতন চালানো হয় সেটাই ইউরোপের বাইরে থেকে যাওয়া লোকদের সঙ্গেও করা হচ্ছে।

গতকাল এক টেলিভিশন ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, স্রেব্রেনিচার গণহত্যার জন্যও নেদারল্যান্ডস দায়ী।

১৯৯৫ সালে বসনিয়ার স্রেব্রেনিচায় আট হাজার মুসলিম শিশু, তরুণ ও বয়স্ক পুরুষকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়। বসনীয় সার্ব বাহিনী এই হত্যাযজ্ঞের জন্য দায়ী হলেও ঘটনার সময় ওই এলাকায় মোতায়েন জাতিসংঘের ডাচ শান্তিরক্ষীরা তাদের বাধা দিতে ব্যর্থ হয়েছিল।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান অভিযোগ করেন, ওই ব্যর্থতাই দেখিয়েছে ডাচদের ‘নৈতিকতা ভেঙে পড়েছে’। তিনি বলেন, ‘স্রেব্রেনিচা হত্যাযজ্ঞ থেকেই নেদারল্যান্ডসের লোকজনের পরিচয় পেয়েছি আমরা। সেখানে তারা যে আট হাজার বসনীয়কে হত্যা করেছে, তার থেকেই আমরা জানি তাদের চরিত্র কতটা পচে গেছে। ’ ওই হত্যাযজ্ঞের জন্য জাতিসংঘের ট্রাইব্যুনালে বসনীয় সার্বদের বিচার চলছে। এরদোয়ানের বক্তব্য থেকে বোঝা যায়, নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে শুরু হওয়া বাগ্যুদ্ধে এত সহজে ক্ষান্ত দেবেন না তিনি।

তবে এরদোয়ানের এ মন্তব্যকে ‘জঘন্য মিথ্যা’ বলে অভিহিত করেছেন নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুচা। তিনি বলেছেন, ‘ঘণ্টায় ঘণ্টায় এরদোয়ান ক্রমাগত হিস্টিরিয়াগ্রস্ত হয়ে পড়ছেন এবং আমি চাই তিনি শান্ত হোন। ’ এরদোয়ানের ক্ষমতা আরো বাড়াতে ১৬ এপ্রিল সংবিধান সংশোধন নিয়ে তুরস্কে গণভোট হওয়ার কথা রয়েছে। এই গণভোটের প্রচারে নেদারল্যান্ডসে তুর্কি মন্ত্রীদের সমাবেশ করতে না দেওয়ার জেরে দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের অবনতি ঘটে। এর জেরে নেদারল্যান্ডসের কড়া সমালোচনা করাসহ একের পর এক কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে তুরস্ক। ডাচ রাষ্ট্রদূতকে আংকারায় নিষিদ্ধ করার পাশাপাশি নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে উচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক আলোচনা বন্ধ করা এমনকি দ্বিপক্ষীয় বন্ধুত্বেরও ইতি টানা হবে জানিয়েছেন তুরস্কের উপপ্রধানমন্ত্রী। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।


মন্তব্য