kalerkantho


সাক্ষাৎকারে বাশার আল আসাদ

সিরিয়ায় অবস্থানরত মার্কিন সেনারা ‘হানাদার বাহিনী’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সিরিয়ায় অবস্থানরত মার্কিন সেনারা ‘হানাদার বাহিনী’

সিরিয়ায় অবস্থানরত মার্কিন সেনাদের ‘হানাদার বাহিনী’ বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ। তাঁর যুক্তি, সিরিয়ায় প্রবেশের ক্ষেত্রে তাদের কোনো অনুমতি দেওয়া হয়নি। এ ছাড়া ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে চলমান লড়াইয়ে মার্কিন প্রশাসনের কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেই।

সিরিয়ায় কয়েক বছর ধরে গৃহযুদ্ধ চলছে। এর মধ্যে পরিস্থিতি আরো জটিল করে তোলে আইএস। সেখানে আসাদ বাহিনীর পাশাপাশি আইএসকেও মোকাবেলা করতে হচ্ছে বিদ্রোহীদের। এতে তাদের সহায়তা দিয়ে আসছে মার্কিন সেনারা। অন্যদিকে আসাদের হয়ে আইএসের বিরুদ্ধে লড়ছে রুশ সেনারা।

এ অবস্থায় সিরিয়ার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে প্রেসিডেন্ট আসাদের একটি সাক্ষাৎকার নিয়েছে চীনের ‘ফিনিক্স টিভি’। গত শনিবার সাক্ষাৎকারটি সিরিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদ সংস্থা ‘সানা’য় প্রকাশিত হয়।

আসাদ বলেন, ‘আমাদের অনুমতি না নিয়ে এবং কোনো আলোচনা ছাড়া সিরিয়ায় কোনো শক্তি প্রবেশ করার মানে হলো তারা বহিরাগত, হানাদার বাহিনী।

সেই শক্তি যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক কিংবা অন্য যেকোনো দেশ হতে পারে। এ ছাড়া আমি মনে করি না, মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি কোনো উপকার করেছে। তারা কী করছে! আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই করছে? কিন্তু তারা প্রায় প্রতিটি যুদ্ধে হেরেছে। তারা ইরাকে হেরেছে, আফগানিস্তানে হেরেছে, সোমালিয়ায় হেরেছে। ’

আসাদ বলতেই থাকেন, ‘কোনো দেশে সেনা পাঠিয়ে তারা সফল হতে পারেনি। তারা কেবল গণ্ডগোল পাকাতে পারে। তারা বিশৃঙ্খল ও ধ্বংসের কাজে খুবই পারদর্শী। কিন্তু সমাধান বের করার ক্ষেত্রে একেবারেই কাঁচা। ’

সাক্ষাৎকারে আসাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়, সিরিয়া ও মার্কিন সেনাদের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার কোনো জায়গা আছে কি না। জবাবে আসাদ বলেন, ‘আছে। কিন্তু দুই পক্ষের মধ্যে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক কোনো সমঝোতা নেই। ’

আসাদ আরো বলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে-পরে ডোনাল্ড ট্রাম্প আইএসবিরোধী লড়াই জোরদার করা নিয়ে অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কিন্তু বাস্তবে এখন পর্যন্ত কিছুই দেখা যায়নি। ’

সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র একা একা কিছু অভিযান আইএসের বিরুদ্ধে চালাচ্ছে। কিন্তু এ ধরনের লড়াইয়ে বিচ্ছিন্নভাবে কিছু করা সম্ভব নয়। সমন্বিতভাবে করতে হবে। যেমনটা রাশিয়া করেছে এবং সফল হয়েছে। ’ তিনি বলেন, ‘কেবল আকাশ থেকে গোলা ফেলে আইএস নির্মূল করা যাবে না। মাঠে থাকতে হবে। সূত্র : সিএনএন।


মন্তব্য