kalerkantho


ভোটে এসে শোচনীয় হার ইরম শর্মিলার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ভোটে এসে শোচনীয় হার ইরম শর্মিলার

সশস্ত্র বাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা আইন বাতিলের দাবিতে দীর্ঘ ১৬ বছরের অনশন প্রত্যাহার করে মূলস্রোতের রাজনীতিতে এসেছিলেন শর্মিলা চানু। কিন্তু ভোটযুদ্ধে কোনো প্রভাবই ফেলতে পারলেন না। মণিপুরের থৌবল কেন্দ্র থেকে মুখ্যমন্ত্রী ওকরাম ইবোবি সিংহের বিপক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বাজিমাত করলেন ওকরামই।

তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী ওকরামকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন শর্মিলা। তাঁকে ভোটে জেতাতে ডাক দিয়েছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। আর্থিক সাহায্যও করেছিলেন। কিন্তু ধরাশায়ী শর্মিলা। মাত্র ৯০টি ভোট পেয়েছেন তিনি। সেখানে ওকরামের প্রাপ্ত ভোট ১৮ হাজার ৬৪৯টি। এ কেন্দ্রে দ্বিতীয় স্থানে আছেন বিজেপির প্রার্থী লেইথানথেম বসন্ত সিংহ।

মণিপুরে ভোট গণনার প্রবণতা হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিচ্ছে। ৪০টি আসনের বিধানসভা। ম্যাজিক ফিগার ২১। এখন পর্যন্ত প্রায় সমানে সমানে এগোচ্ছে কংগ্রেস ও বিজেপি। কংগ্রেস এখন পর্যন্ত ২১টি আসনে এগিয়ে। বিজেপি এগিয়ে ১০টি আসনে। শর্মিলার দল পিআরজিএ এখন পর্যন্ত সেভাবে আশানুরূপ ফল করতে পারেনি। অন্যান্য দল ১০টি আসনে এগিয়ে।

মণিপুরে কোনো দলই এককভাবে ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছতে পারবে না, এমনটাই বুথফেরত সমীক্ষা অনুযায়ী প্রতিবেদন ছিল। সরকার গঠনে ছোট দলগুলো বড় ভূমিকা নিতে পারে। ১৫ বছর ধরে উত্তর-পূর্বের এ রাজ্যে ক্ষমতায় রয়েছে কংগ্রেস। ৬০ আসনের মণিপুর বিধানসভায় ২০১২ সালের বিধানসভা ভোটে কংগ্রেস একাই পেয়েছিল ৪২টি আসন। তৃণমূল কংগ্রেস পায় সাতটি আসন। এবার অবশ্য হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত আগে থেকেই ছিল কংগ্রেস-বিজেপির মধ্যে। সূূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।


মন্তব্য