kalerkantho


‘মসুল ছেড়ে বাগদাদি পালিয়েছেন’

শহরের আরো ভেতরে ইরাকি বাহিনী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১০ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



ইরাকি সেনারা প্রবল আক্রমণ চালিয়ে মসুলে আইএসকে কোণঠাসা করে ফেলেছে। এ রকম অবস্থায় মার্কিন একজন প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আইএসের প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি তাঁর অবশিষ্ট কমান্ডারদের ওপর লড়াই চালিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব ন্যস্ত করে মসুল ছেড়ে চলে গেছেন। সম্ভবত তিনি ইরাকের বিস্তৃত মরুভূমির কোথাও আশ্রয় নিয়েছেন। তবে সেই জায়গাটি প্রযুক্তিগতভাবে এখনো চিহ্নিত করতে পারেনি মার্কিন সেনারা। মার্কিন কমান্ডার জানান, ধরা না পড়ার জন্য বাগদাদি কোনো ধরনের সংযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করছেন না।

মসুলের পশ্চিম অংশ থেকে আইএসকে হটাতে এখন তীব্র লড়াই চলছে। ইরাকি সেনাবাহিনীর নবম সাঁজোয়া ডিভিশন ও শিয়া যোদ্ধাদের দুটি দল পশ্চিম মসুলকে তাল আফার থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে। তবে আইএস জঙ্গিরা অবস্থান ধরে রাখার মরিয়া চেষ্টায় আত্মঘাতী গাড়িবোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে চলেছে। গত মঙ্গলবার রাতে হাতছাড়া হওয়া মসুলের সরকারি ভবন কমপ্লেক্স এলাকায় ইরাকি বাহিনীকে লক্ষ্য করে গাড়িবোমা হামলা চালিয়েছে জঙ্গিরা। বেসামরিক বাসিন্দাদের সঙ্গে মিশে থেকে গুলি ছুড়ছে আগুয়ান ইরাকি সেনাদের দিকে।

গত বুধবার ইরাকের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে রণাঙ্গনের কমান্ডারদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জানানো হয়েছে, ইরাকের সমন্বিত বাহিনী (সেনাবাহিনী ও শিয়া আধাসামরিক বাহিনী) মসুল থেকে পশ্চিম দিকে চলে যাওয়া অবশিষ্ট প্রধান সড়কটিরও পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।

সড়কটি মসুল থেকে আইএসের আরেক ঘাঁটি তাল আফার হয়ে সীমান্তের ওপারে সিরিয়া পর্যন্ত চলে গেছে। মসুলের পতনের মুখে পশ্চিমের এই পথগুলো ধরেই আইএস জঙ্গিরা ৬০ কিলোমিটার দূরের তাল আফারে পালিয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। মসুল অভিযানে অংশ নেওয়া শিয়া বাহিনীগুলো ডিসেম্বর থেকে তাল আফারের দিকে অগ্রসর হতে শুরু করে। কুর্দি যোদ্ধাদের সঙ্গে মিলে তাল আফার ঘিরে ফেলার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সহায়তায় শুরু হওয়া মসুল অভিযানে জানুয়ারিতে পূর্ব মসুল পুনরুদ্ধার করে ইরাকি বাহিনী। ১৯ ফেব্রুয়ারি তাইগ্রিস নদীর অপর পারে পশ্চিম মসুল পুনরুদ্ধারে অভিযান শুরু করে তারা। শহরের এই পশ্চিম অংশে অবস্থিত আল নুরি মসজিদ থেকেই ‘খিলাফতের’ ঘোষণা দিয়েছিলেন আইএসের প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি।

সূত্র : এএফপি, বিবিসি।


মন্তব্য