kalerkantho


জং নামের ছেলের ভিডিও ভাইরাল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



জং নামের ছেলের ভিডিও ভাইরাল

কিম জং নাম হত্যাকাণ্ডের প্রায় এক মাস পর তাঁর ছেলের এক ভিডিও চিত্রের হদিস মিলেছে। মাত্র ৪০ সেকেন্ডের এ ভিডিও চিত্রে তিনি কেবল জানিয়েছেন, তিনি বর্তমানে তাঁর মা-বোনের সঙ্গে রয়েছেন। কিন্তু ভিডিও চিত্র ধারণের তারিখ, সময়, স্থান, এমনকি তাঁদের বর্তমান ঠিকানাও এতে উল্লেখ করা হয়নি।

জং নামের ছেলে কিম হান সোল খুব স্বল্প সময়ের এ ভিডিও চিত্রে বলেন, ‘আমার নাম কিম হান সোল, উত্তর কোরিয়ার কিম পরিবারের সদস্য। ’ এর পরই নিজের পরিচয়ের প্রমাণ হিসেবে তিনি তাঁর উত্তর কোরীয় কূটনৈতিক পাসপোর্টটি তুলে ধরেন। তবে ভিডিও চিত্রে পাসপোর্ট প্রদর্শনকালে তাঁর পরিচয়সংবলিত অংশটুকু সম্পাদনার মাধ্যমে কালো আবরণে ঢেকে দেওয়া হয়। পাসপোর্ট দেখানোর পর হান সোল বলেন, ‘কিছুদিন আগে আমার বাবা খুন হয়েছেন। বর্তমানে আমি মা ও বোনের সঙ্গে রয়েছি। ’ কাটছাঁট করা ও অংশবিশেষ সম্পাদিত এ ভিডিওচিত্রের শেষে তিনি বলেন, ‘আমার প্রত্যাশা, শিগগির পরিস্থিতি ভালো হবে। ’

গত ১৩ নভেম্বর মালয়েশিয়ায় খুন হন উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের সত্ভাই জং নাম। স্বজনদের ডিএনএ নমুনা না পেলে মালয়েশিয়া সরকার জং নামের মৃতদেহ উত্তর কোরিয়াকে হস্তান্তর করবে না বলার পরও তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

এবার সরাসরি না হলেও ছেলের একটি ভিডিও চিত্র অনলাইনে পাওয়া গেছে।

চেওলিমা সিভিল ডিফেন্স (সিসিডি) নামের কোনো একটি দল ভিডিও চিত্রটি অনলাইনে পোস্ট করেছে। তারাই চ্যানেল নিউজ এশিয়ার মালয়েশিয়া প্রতিনিধির কাছে ভিডিওটির লিংক পাঠিয়েছে। এ দলের নাম আগে শোনা যায়নি। দলটি সম্প্রতি তাদের ওয়েবসাইট রেজিস্ট্রেশন করিয়েছে এবং ইউটিউবে তাদের অ্যাকাউন্টটিও সম্প্রতি খোলা হয়েছে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা। নিজস্ব ওয়েবসাইটে এক বার্তায় দলটি জানিয়েছে, জং নামের পরিবারের জীবিত সদস্যদের সুরক্ষা চেয়ে করা অনুরোধে তারা সাড়া দিয়েছে। দলটি ওয়েবসাইটে লিখেছে, ‘অতীতেও আমরা জরুরি সুরক্ষার প্রয়োজনে কাজ করেছি। বিশেষ এ বিষয়ে এটাই প্রথম ও শেষ বিবৃতি এবং এ পরিবারের বর্তমান অবস্থান জানানো হবে না। ’ জরুরি মানবিক সহায়তা দেওয়ায় সিসিডি নেদারল্যান্ডস, চীন, যুক্তরাষ্ট্র এবং নামোল্লেখ না করে ‘একটি চতুর্থ দেশকে’ ধন্যবাদ জানিয়েছে। তারা বিশেষ ধন্যবাদ জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ায় নিযুক্ত ডাচ রাষ্ট্রদূত এ জে এ এমব্রেখটসকে।  

উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ের দক্ষিণ-পশ্চিমে চেওলিমা নামে একটি শহর রয়েছে উল্লেখ করে দক্ষিণ কোরিয়ার ইয়োনহাপ সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, উত্তর কোরীয়দের চেওলিমায় পালিয়ে যেতে সম্ভবত সিসিডিই সহায়তা করেছে। সূত্র : বিবিসি।


মন্তব্য