kalerkantho


আজও অনেক ক্ষেত্রেই লড়তে হচ্ছে নারীকে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আজও অনেক ক্ষেত্রেই লড়তে হচ্ছে নারীকে

উজ্জ্বল আলোর মতো সম্ভাবনা আর নিকষ কালো আশঙ্কার আঁঁধার নিয়েই পার হয় প্রতিটি নারীর জীবন। দুটি অংশকেই প্রতীক হিসেবে নিয়ে মুখে এঁকে এবারের আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে স্বাগত জানায় এই দুই শিক্ষার্থী। গতকাল ভারতের চেন্নাইয়ের একটি কলেজ থেকে তোলা ছবি। ছবি : এএফপি

আজকের পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক পরিস্থিতি শত বছর আগের চেয়ে ভিন্ন বটে। তবে পারিবারিক আবহে আজও নারী শারীরিক-মানসিক নিপীড়নের শিকার, কর্মক্ষেত্রে আছে বেতনবৈষম্য, বাইরের জগতে নারীর স্বাধীন চলাফেরায় আছে হাজারো প্রতিকূলতা। সব কিছু মিলিয়ে বর্তমান পরিস্থিতিতে নারীর অধিকার আদায়ের লড়াই আরো হুমকির মধ্যেই রয়েছে বলে মনে করেন পর্যবেক্ষকরা। আর এ কারণেই আন্তর্জাতিক নারী দিবস এখনো প্রাসঙ্গিক বলে তাঁদের অভিমত।

পোল্যান্ডের রাজনীতিক ও ‘সেভ উইমেন’ কমিটির প্রতিনিধি বারবারা নাওয়াকা বলেন, ‘শ্রমবাজারে, সমাজে, রাজনীতিতে নারীর ভূমিকা নিয়ে এখনো আরো অনেক কিছু করার আছে। ’ পোলিশ এ নারীর মতে, ‘৮ মার্চ কেবল নারী অধিকার আদায়ের আন্দোলনকারীদের স্মরণ করার জন্য এবং অতীতে অর্জিত সফলতা উদ্যাপনের জন্য নয়, বরং বর্তমান পরিস্থিতিকে আরো বেশি প্রতিফলিত করার জন্যও বটে। ’ আন্তর্জাতিক নারী দিবসের ঠিক আগের দিন গতকাল মঙ্গলবার তিনি এসব কথা বলেন।

লাতিন আমেরিকায় নারী হত্যা, ইউরোপে গর্ভপাতবিরোধী আন্দোলন, বিশ্বজুড়ে নারীর প্রতি সহিংসতা, কর্মক্ষেত্রে বৈষম্য নারীবাদীদের উদ্বেগের কারণ হয়ে রয়েছে। নারী স্বাধীনতাবিরোধীদের তৎপরতা সম্পর্কে ফ্রান্সের পরিবার পরিকল্পনা সংস্থার আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি দেখভালের দায়িত্বে থাকা ক্রিস্টিন মগেট বলেন, ‘এসব লোক একজোট হচ্ছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এরা খুবই সক্রিয় এবং রাজনীতিতেও এদের প্রভাব আছে। ’ পুরুষের অতিমাত্রায় পৌরুষত্বের অহংকার আজকের দিনেও অন্যতম এক সমস্যা মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘কোনো পদক্ষেপ নিয়ে সামনে এগোনো মুশকিল। তবে তারা যাতে পশ্চাৎপদ না হয়, আমরা সেই চেষ্টা করি।

জাতিসংঘের হিসাব মতে, বিশ্বের ৩৫ শতাংশ নারী শারীরিক বা যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছে, ২০ কোটি নারী ও বালিকাকে যৌনাঙ্গচ্ছেদের শিকার হতে হচ্ছে, ১৮ বছর বয়সের আগেই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হচ্ছে ৭০ কোটি নারীকে। কর্মক্ষেত্রে নারীর আয় এখনো পুরুষের চেয়ে ২৩ শতাংশ কম। আন্তর্জাতিক শ্রম সংগঠনের (আইএলও) মতে, কর্মক্ষেত্রে নারী-পুরুষের আয়ের সমতা আসতে আরো ৭০ বছর লাগবে। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য