kalerkantho


মসুলের চারটি এলাকায় ইরাকি বাহিনীর অভিযান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



মসুলের পশ্চিমাঞ্চলে গতকাল রবিবার ইসলামিক স্টেট (আইএস) নিয়ন্ত্রিত চারটি এলাকায় ইরাকের নিরাপত্তা বাহিনী হামলা চালিয়েছে। এর মধ্যে প্রাদেশিক গভর্নরের কার্যালয়ও রয়েছে। এদিকে গত কয়েক দিনে পশ্চিম মসুল দখলের লড়াই চলাকালে এলাকা ছেড়ে অন্তত ৪৫ হাজার লোক পালিয়ে গেছে। আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংগঠন (আইওএম) গতকাল এ তথ্য জানায়।

ইরাকি বাহিনী মসুল শহরের পশ্চিমাঞ্চল পুনর্দখলে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বড় ধরনের অভিযান শুরু করে। ইসলামিক স্টেটের নিয়ন্ত্রণে থাকা এটিই সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। ইরাকি বাহিনী এর আগে মসুলের দক্ষিণাঞ্চলের নিয়ন্ত্রণের জন্য অভিযান চালিয়েছিল। ইতিমধ্যে তারা আইএসের কাছ থেকে বেশ কয়েকটি এলাকার নিয়ন্ত্রণ নেয়।

ইরাকের জয়েন্ট অপারেশন্স কমান্ড এক বিবৃতিতে জানায়, ফেডারেল পুলিশ ও র‌্যাপিড রেসপন্স ডিভিশন ফোর্স আল দিনদান ও আল দাবাসা এলাকায় হামলা চালিয়েছে। নিনেভেহর গভর্নরের সদর দপ্তরসহ কয়েকটি সরকারি দপ্তরের ভবন আল দাবাসায় অবস্থিত। মসুল নিনেভেহ প্রদেশের রাজধানী।

জয়েন্ট ফোর্সের অপর এক বিবৃতিতে বলা হয়, এ ছাড়া সন্ত্রাস দমনবিরোধী বাহিনী আল সামুদ ও তাল আল রুমান এলাকাতেও হামলা চালায়। তাদের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে আইওএম জানিয়েছে, মসুল পুনর্দখলের লড়াইয়ে অন্তত ৪৫ হাজার লোক এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে। তবে এমআইও ২৫ ফেব্রুয়ারির পর যারা মসুল ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে পালিয়ে এসেছে তাদের হিসাব জানিয়েছে। এর আগেও বহু লোক মসুল ছাড়ে। ২৮ ফেব্রুয়ারি এক দিনেই মসুল ছেড়ে আসে ১৭ হাজারের বেশি মানুষ। ৩ মার্চ এ সংখ্যা ছিল ১৩ হাজারেরও বেশি।

উল্লেখ্য, আইএস ২০১৪ সালে বাগদাদের পশ্চিম ও উত্তরাঞ্চলের বহু এলাকা দখলে নেয়। কিন্তু মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিমান হামলার সমর্থনে ইরাকি বাহিনী হারানো এলাকার অনেকাংশই পুনর্দখল করে। গত ১৭ অক্টোবর তারা পুনর্দখল অভিযান শুরু করে। আইওএম জানিয়েছে, বর্তমানে মসুলের প্রায় দুই লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত। সূত্র : এএফপি।

 


মন্তব্য