kalerkantho


মালদ্বীপে সৌদির দ্বীপ কেনার খবরে উদ্বিগ্ন ভারত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



মালদ্বীপের কাছ থেকে সৌদি আরবের একটি দ্বীপ কেনার পরিকল্পনার খবরে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে ভারতে। নয়াদিল্লির কর্মকর্তারা সৌদি আরবে তাঁদের প্রতিবেশী দেশের দ্বীপ কেনাকে দক্ষিণ এশিয়ার নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগের কারণ বলে মনে করছে।

মালদ্বীপের আবদুল্লাহ ইয়ামিন সরকারের দ্বীপ বিক্রির সিদ্ধান্তের খবরটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম পেয়েছে দেশটির বিরোধী দল মালদ্বীপ ডেমোক্রেটিক পার্টির (এমডিপি) সূত্রে। এ দলের নেতারা বলছেন, প্রবাল দ্বীপ ফাফু সৌদি আরবের কাছে বিক্রি করতে যাচ্ছে সরকার। বিষয়টি চূড়ান্ত করতে মালদ্বীপ সফরে আসছেন সৌদি বাদশাহ সালমন বিন আবদুল আজিজ আল সউদ।

পশ্চিমবঙ্গের দৈনিক আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, ফাফু দ্বীপটি নিয়ে এত দিন পর্যন্ত এক ধরনের  সম্পর্ক ছিল ইরানের। তবে বর্তমানে দ্বীপটির সঙ্গে সৌদির একটি সম্পর্ক দাঁড়িয়েছে। দ্বীপের ৩০০ শিক্ষার্থী বৃত্তি দিচ্ছে সৌদি আরব। এদের ৭০ শতাংশই ওহাবি মতাদর্শের মুসলমান। দ্বীপের স্কুলগুলোতেও শিক্ষা দিচ্ছেন সৌদি আরব থেকে আসা শিক্ষকরা। ভারতের কর্মকর্তারা মনে করেন, আইএসের মতো জঙ্গিগোষ্ঠীর উত্থানের প্রেক্ষাপটে মালদ্বীপে ওহাবি মতাদর্শের এ শিক্ষা দক্ষিণ এশিয়ায় জঙ্গিবাদকে উসকে দেবে।

মালদ্বীপের এমডিপি নেতা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আহমেদ নাসিম টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলেন, ওহাবি মতাদর্শের মানুষের কথা মাথায় রেখেই সরকার সৌদি আরবের কাছে দ্বীপ বিক্রির এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যুক্তরাজ্যে নির্বাসিত মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদের দলের নেতা নাসিম আরো বলেন, ‘জনগণের মতের তোয়াক্কা না করেই সরকার দ্বীপ বিক্রি করতে যাচ্ছে। ’

মালদ্বীপে এত দিন বিদেশিদের জায়গাজমি কেনার কোনো সুযোগ ছিল না। কিন্তু ২০১৫ সালে সরকার সংবিধান সংশোধন করে সেই সুযোগ তৈরি করেছে।

ভারত মহাসাগরে অনেক দ্বীপ নিয়ে গঠিত প্রতিবেশী এ রাষ্ট্রে এখনো সফরে যাননি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তবে সম্প্রতি তিনি দেশটির সরকারের প্রতি সমর্থন জানাতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবরকে সেখানে পাঠান। আনন্দবাজার জানায়, সৌদির দ্বীপ কেনা ঠেকাতে মোদি হয়তো শিগগিরই মালদ্বীপ সফরে যাবেন। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া, আনন্দবাজার।


মন্তব্য