kalerkantho


উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ভিসামুক্ত ভ্রমণ বাতিল মালয়েশিয়ার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ভিসামুক্ত ভ্রমণ বাতিল মালয়েশিয়ার

উত্তর কোরীয় নেতার সত্ভাইয়ের হত্যাকাণ্ডের জেরে দেশটির সঙ্গে ভিসামুক্ত ভ্রমণ চুক্তি বাতিল করেছে কুয়ালালামপুর। মালয়েশিয়ার এই পদক্ষেপের ফলে দেশ দুটির মধ্যে চলমান কূটনৈতিক বিরোধ আরো গভীর হলো।

এদিকে ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আটক উত্তর কোরীয় সন্দেহভাজনকে মালয়েশিয়া ছেড়ে দেবে। তাঁকে হত্যা করায় দুই নারীকে অভিযুক্ত করার একদিন পর বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল এ কথা জানান।

দেশটির জাতীয় সংবাদ সংস্থা বারনামা উপপ্রধানমন্ত্রী আহমাদ জাহিদ হামিদির বরাত দিয়ে জানায়, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ভিসা চুক্তি বাতিলের সিদ্ধান্ত ৬ মার্চ থেকে কার্যকর হবে। ওই তারিখ থেকে উত্তর কোরীয়দের মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করতে হলে ভিসা নিতে হবে। নামের হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে বেশ কয়েকজন উত্তর কোরীয়কে খুঁজছে মালয়েশিয়া। তাদের কয়েকজন দুই দেশের মধ্যে ভিসামুক্ত প্রবেশের সুযোগে মালয়েশিয়ায় ঢুকে নামের হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে দেশ ছেড়ে চলে যায় বলে মনে করা হচ্ছে।

কিম জং নামের হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে আটক রি জং চল গত দুই সপ্তাহ ধরে মালয়েশিয়ার পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন। মালয়েশিয়ার এক কর্মকর্তা বলেছেন, ‘রি জং চলকে মুক্তি দেওয়া হবে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা শেষ হয়েছে।

তাঁকে অভিযুক্ত করার পক্ষে যথেষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাই তাঁকে কালই ছেড়ে দেওয়া হবে। ’

১৩ ফেব্রুয়ারি কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কিম জং নামের হত্যাকাণ্ডের আগে দেশ দুটির মধ্যে উষ্ণ সম্পর্ক বিরাজ করছিল। ভিসামুক্ত চুক্তির আওতায় দেশ দুটির নাগরিকরা ভিসা ছাড়াই ভ্রমণ করতে পারত। এই চুক্তির আওতায় দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যের বিষয়টিও ছিল। ১৯৭০ সালে দুই দেশের মধ্যে সীমিতভাবে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হয়। এরপর থেকে পামঅয়েল ও ইস্পাতসহ অন্যান্য পণ্যের বাণিজ্যের মাধ্যমে দুই দেশের সম্পর্ক বৃদ্ধি পায়। ২০০৩ সালে কুয়ালালামপুরে দূতাবাস খোলে উত্তর কোরিয়া।

কিন্তু নামের হত্যাকাণ্ড দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কে চিড় ধরেছে। ওই হত্যাকাণ্ডের জেরে মালয়েশিয়া পিয়ংইয়ং থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠায়। অন্যদিকে উত্তর কোরিয়া নামের মৃতদেহ ফেরত চায়। কিন্তু মালয়েশিয়া জানিয়ে দেয়, লাশের দাবিদার হিসেবে কেউ ডিএনএ স্যাম্পল মিলিয়ে নিকটাত্মীয় প্রমাণ করতে পারলেই শুধু মৃতদেহ হস্তান্তর করা হবে। এই জবাব এবং মালয়েশিয়া নামের লাশের ময়নাতদন্ত করায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানায় পিয়ংইয়ং।

১৩ ফেব্রুয়ারি কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে নামকে হত্যায় মারাত্মক বিষাক্ত রাসায়নিক ভিক্স নার্ভ এজেন্ট ব্যবহার করে দুই নারী। তাদের মধ্যে ২৮ বছর বয়সী ডোয়ান থি হুওং ভিয়েতনাম এবং ২৫ বছর বয়সী সিতি আইসাহ ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক। বুধবার আদালতে তাদের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণ হলে তাদের মৃত্যুদণ্ড হতে পারে। তারা নামের মুখে ওই বিষাক্ত এজেন্ট মাখা রুমাল চেপে ধরে সটকে পড়ে। এর ১৫ থেকে ২০ মিনিটের মধ্যেই মারা যান নাম। জং নাম উত্তর কোরিয়ার বর্তমান নেতা ও তাঁর সত্ভাই জং নাম উনের প্রশাসনের সমালোচক হিসেবে পরিচিত ছিলেন। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।


মন্তব্য