kalerkantho


তালেবান নেতার বৃক্ষপ্রেম!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আফগানিস্তানের জনগণকে বেশি করে গাছ লাগানোর আহ্বান জানিয়েছেন তালেবান নেতা হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা। তিনি বলেছেন, বিশ্বের মঙ্গল ও সমৃদ্ধির জন্যই এটা করা দরকার।

বছরের এ সময়টিতে আফগানিস্তানে তালেবানের সন্ত্রাসী হামলা বরাবরই বেড়ে থাকে। তাই হঠাৎ করে তালেবান নেতার এ বিরল পরিবেশবান্ধব আহ্বানে ‘ধোঁকাবাজির’ গন্ধ দেখছে আফগান সরকার।

গতকাল রবিবার এক বিবৃতিতে আখুন্দজাদা আফগান জনগণ এবং তালেবান যোদ্ধাদের অন্তত একটি গাছ লাগানোর আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর সৌন্দর্যের স্বার্থে এবং মহান আল্লাহর সৃষ্টির খেদমতে এক বা একাধিক ফলের বা যেকোনো গাছ লাগান। ’ তালেবানের প্রচারমাধ্যমগুলো ‘বিশেষ’ এ বিবৃতি প্রকাশ করে।

পরিবেশ রক্ষায় তালেবানের কাছ থেকে এ ধরনের বিবৃতি বিরল। এখন পর্যন্ত একমাত্র যে কৃষিকাজের সঙ্গে তালেবানের সংশ্লিষ্টতার কথা শোনা যায় তা হলো অবৈধ আফিম চাষ। ২০১৬ সালে পাকিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের এক ড্রোন হামলায় পূর্বসূরি নেতা মারা যাওয়ার পর আখুন্দজাদা মে মাসে তালেবানের নেতৃত্বে আসেন। তিনি সামরিক নেতার চাইতে ধর্মীয় নেতা হিসেবেই বেশি পরিচিত।

তিনি ১৫ বছর পাকিস্তানের একটি মাদরাসায় ধর্ম শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন বলে প্রকাশিত খবরে জানা যায়। তালেবানের নেতা নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই তিনি আত্মগোপনে আছেন।

তালেবানের এ হঠাৎ বৃক্ষপ্রেম নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেছে আফগান সরকার। প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানির মুখপাত্র শাহ হোসেন মোতোয়াজি বলেছেন, জনগণকে ধোঁকা দিতে তালেবানের এ বিবৃতি। তিনি বলেন, তালেবান তাদের ‘অপরাধ ও ধ্বংসযজ্ঞ’ থেকে মানুষের দৃষ্টি সরাতে চাইছে।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেদিক সেদিকি বলেন, ‘এসব না করে তালেবানের উচিত বোমা হামলা বন্ধ করা। তাদের পুঁতে রাখা বোমা প্রতিদিন বহু নিরীহ আফগান নারী ও শিশু মারা যাচ্ছে। ’

উল্লেখ্য, জাতিসংঘের হিসাবমতে, ২০১৬ সালে সরাসরি যুদ্ধ ছাড়াই আফগানিস্তানে গত বছর রেকর্ড ১১ হাজার ৫০০ বেসামরিক লোক হতাহত হয়েছে। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য