kalerkantho


নিলামে উঠছে হিটলারের ‘গণবিধ্বংসী টেলিফোন’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নিলামে উঠছে হিটলারের ‘গণবিধ্বংসী টেলিফোন’

নাৎসি নেতা অ্যাডল্ফ হিটলারের ব্যক্তিগত টেলিফোনটি নিলামে তোলা হচ্ছে। লাল রঙের টেলিফোনটি সব সময় হিটলারের সফরসঙ্গী ছিল। এর মাধ্যমেই তিনি ষড়যন্ত্র, গুপ্তহত্যার মতো ভয়ংকর সব নির্দেশ দিয়েছিলেন। ইতিহাসবিদদের মতে, এটিই বিশ্বের সবচেয়ে অভিশপ্ত টেলিফোন। এ সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ডের চেসাপিক সিটিতে এটি নিলামে তুলছে আলেক্সান্ডার হিস্টোরিক্যাল অকশন নামের নিলাম হাউস।

নািস বাহিনীর স্বস্তিকা চিহ্ন ও হিটলারের নাম খোদাই করা টেলিফোনটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষে ১৯৪৫ সালে বার্লিনে হিটলারের বাংকারে পাওয়া গিয়েছিল। রাশিয়ার সেনারা এটি পায়। পরে ব্রিটিশ ব্রিগেডিয়ার স্যার র‌্যাল্ফ রেইনার ওই বাংকার পরিদর্শনে গেলে তাঁকে রাশিয়ার অফিসাররা টেলিফোনটি উপহার দেন। আলেক্সান্ডার অকশন টেলিফোনটি নিলামে তুলছে রেইনারের ছেলের কাছ থেকে কিনে নেওয়ার পর।

ইতিহাসবিদদের মতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ দিকটায় ওই বাংকারেই ছিলেন হিটলার। যুদ্ধ শেষ হওয়া পর্যন্ত এই জায়গা হয়ে ওঠে তাঁর প্রধান কর্মক্ষেত্র।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, এখান থেকেই টেলিফোনে অসংখ্য ইহুদি হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন হিটলার। যুদ্ধের নানা পরিকল্পনা থেকে শুরু করে নিজের শ্যালককে হত্যার নির্দেশও দেন ওই টেলিফোনের মাধ্যমে।

নিলাম হাউসটি জানিয়েছে, তারা আশা করছে, টেলিফানটির দাম উঠবে দুই লাখ থেকে তিন লাখ মার্কিন ডলার। তবে নিলাম শুরু হবে এক লাখ মার্কিন ডলার থেকে।

টেলিফোনটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব তুলে ধরে আলেক্সান্ডার হিস্টোরিক্যাল অকশনের কর্মকর্তা বিল পানাগোপুলস বলেন, ‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে অসংখ্য মানুষকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছিলেন নাস নেতা হিটলার, যার মধ্যে বহু নির্দেশ গেছে এই টেলিফোনটির মাধ্যমে। তাই একে গণবিধ্বংসী অস্ত্র বলা যায়। ’ সূত্র : বিবিসি, গার্ডিয়ান।


মন্তব্য