kalerkantho


ট্রাম্প নিয়ে ইউরোপকে আশ্বস্ত করলেন পেন্স

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ট্রাম্প নিয়ে ইউরোপকে আশ্বস্ত করলেন পেন্স

বিভিন্ন ইস্যুতে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে ইউরোপের মধ্যে যে সংশয় তৈরি হয়েছে, তা কিছুটা প্রশমিত করার চেষ্টা করলেন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের হয়ে তিনি বলেছেন, রাশিয়ার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের চাপ অব্যাহত থাকবে। সম্পর্ক আগের মতো থাকবে ইউরোপের মিত্রদের সঙ্গেও। এ ছাড়া ন্যাটোর প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের দৃঢ় সমর্থন আছে বলেও ইউরোপকে আশ্বস্ত করেছেন তিনি।

প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগে ও পরে ট্রাম্প এমন অনেক মন্তব্য করেছেন, যা নিয়ে ইউরোপে মার্কিন মিত্র দেশগুলোর মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়। ট্রাম্প একাধিকবার ইঙ্গিত দিয়েছেন, তিনি রাশিয়ার সঙ্গে কাজ করবেন। তাদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ইঙ্গিতও দিয়েছেন তিনি। প্রশ্ন তুলেছেন মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট—ন্যাটোর উপযোগিতা নিয়েও। তাঁর এসব দৃষ্টিভঙ্গির কারণে যুক্তরাষ্ট্র-ইউরোপের ভবিষ্যৎ সম্পর্ক নিয়ে অনেকের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়।

এ অবস্থায় ট্রাম্প প্রশাসনের পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে প্রথমবারের মতো বড় কোনো সম্মেলনে বক্তব্য দিলেন পেন্স। গত শুক্রবার জার্মানির মিউনিখে এক নিরাপত্তা সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আপনারা জেনে রাখুন, জবাবদিহি নিশ্চিত করতে রাশিয়ার ওপর যুক্তরাষ্ট্র চাপ অব্যাহত রাখবে।

এমনকি তাদের সঙ্গে অভিন্ন স্বার্থে কাজ করলেও। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বিশ্বাস করেন, এমন ইস্যু অবশ্যই খুঁজে পাওয়া যাবে, যেখানে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র একসঙ্গে কাজ করতে পারবে। ’

ট্রাম্পের পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে সংশয় থাকায় স্বভাবতই পেন্সের বক্তৃতায় মনোযোগ ছিল ইউরোপের নেতাদের। এ ছাড়া পেন্সের উদ্দেশ্যও ছিল, ইউরোপের মিত্রদের আশ্বস্ত করা। তিনি বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের হয়ে আমি আজ আপনাদের এই নিশ্চয়তা দিচ্ছি যে যুক্তরাষ্ট্র জোরালোভাবে ন্যাটোকে সমর্থন করে। ’

পেন্স বলেন, ‘আপনারা আমাদের ওপর আস্থা রাখুন। ট্রাম্প প্রশাসনও আপনাদের ওপর আস্থা রাখবে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের পরিণতি পরস্পরের সঙ্গে সম্পর্কিত। আপনাদের প্রতিবন্ধকতা মানে আমাদের প্রতিবন্ধকতা। আপনাদের সফলতা মানে আমাদের সফলতা। ’

মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, ‘এটা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের শপথ যে আমরা বর্তমান ও ভবিষ্যতে ইউরোপের পাশেই থাকব। কারণ স্বাধীনতা, গণতন্ত্র, ন্যায়বিচার ইত্যাদি মতাদর্শে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি অভিন্ন। ’

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে পেন্সের পূর্বসূরি জো বাইডেনও মিউনিখ সম্মেলনে এক রকম বক্তব্য দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার সঙ্গে নতুন করে সম্পর্ক স্থাপন করতে চায় এবং বাকি বিশ্বের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়ন করতে চায়। সূত্র : সিএনএন।


মন্তব্য