kalerkantho


ট্রাম্পের অভিবাসনবিরোধী উদ্যোগ

এবার ফাঁকফোকর বন্ধ করেই আদেশ জারি হবে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



এবার ফাঁকফোকর বন্ধ করেই আদেশ জারি হবে

এ সপ্তাহেই অভিবাসনবিরোধী নতুন আদেশ দিতে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কোনো ফাঁকফোকর বের করে আদালত যাতে এ আদেশ স্থগিত করতে না পারেন, সেদিকটা মাথায় রেখেই নতুন আদেশ জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরপরই জারি করা অভিবাসনবিরোধী নির্বাহী আদেশের ওপর প্রথমে সিয়াটলের ফেডারেল কোর্ট স্থগিতাদেশ দেন। পরে আপিল আদালতের নাইনথ সার্কিট কোর্টও ওই স্থগিতাদেশ বহাল রাখেন। সে প্রসঙ্গ টেনে গত বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, ‘যেটাকে আমি খুব খারাপ সিদ্ধান্ত (আদালতের স্থগিতাদেশ) বলে মনে করি, সেটার বিপরীতে অত্যন্ত লাগসই নতুন আদেশ জারি করা হবে। ’

এদিকে সরকারের বিচার বিভাগ নাইনথ সার্কিট কোর্টকে বলেছে, ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের ওপর স্থগিতাদেশসংক্রান্ত মামলার পুনঃ শুনানির জন্য বিচারকদের প্যানেল বড় করার কোনো প্রয়োজন নেই। এর পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট বিচারকও শুনানি আপাতত মুলতবি রাখার সিদ্ধান্তে সম্মতি দেন। আদালতে বিচার বিভাগের দাখিল করা লিখিত বক্তব্যে আগেই বলা হয়েছিল, ‘এ মামলা চালিয়ে যাওয়ার পরিবর্তে প্রেসিডেন্ট বরং নিকট ভবিষ্যতে এ আদেশ বাতিলে আগ্রহী এবং সে স্থলে তিনি নতুন ও ব্যাপকভাবে সংশোধিত আদেশ জারি করতে চান। আগের আদেশে সংবিধান লঙ্ঘনের যে ভ্রান্ত উদ্বেগ (বিচারক) প্যানেল দেখিয়েছেন, সেটা এবার দূর করা হবে। ’

কেবল বিচার বিভাগ নয়, ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হওয়া দুটি অঙ্গরাজ্য ওয়াশিংটন ও মিনেসোটাও এ বিষয়ে নতুন করে আর কোনো শুনানি চাইছে না। অঙ্গরাজ্য দুুটির পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার আদালতে বলা হয়েছে, এ মামলায় পুনঃ শুনানির কোনো ভিত্তি নেই।

কারণ হিসেবে তারা উল্লেখ করেছে, নাইনথ সার্কিট কোর্টের তিন বিচারকের সমন্বয়ে গঠিত প্যানেল ফেডারেল কোর্টের রায় বহাল রাখা ছাড়া নতুন কিছু করেননি। মূলত গত শুক্রবার নাইনথ সার্কিট কোর্টের একজন বিচারক এ মামলার ব্যাপারে পূর্ণ প্যানেলে পুনঃ শুনানির আবেদন জানান। তবে বাদী-বিবাদী উভয় পক্ষের অনাগ্রহের ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট বিচারক পুনঃ শুনানির বিষয়টি আপাতত স্থগিত রাখার পক্ষে মত দিয়েছেন।

নাইনথ সার্কিট কোর্টে মামলার বাদী-বিবাদী উভয় পক্ষ পুনঃ শুনানির বিপক্ষে মত দিলেও সিয়াটলের ডিস্ট্রিক্ট কোর্টের বিচারক জেমস রবার্ট এ মামলা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে। ট্রাম্প প্রশাসনের পক্ষ থেকে গত সপ্তাহে এ মামলার কার্যক্রম স্থগিত রাখার আবেদন করা হলে বিচারক তা প্রত্যাখ্যান করেন। প্রসঙ্গত, জেমস রবার্টই প্রথম ট্রাম্পের অভিবাসনবিরোধী নির্বাহী আদেশের ওপর স্থগিতাদেশ দেন।

সূত্র : সিএনএন।


মন্তব্য