kalerkantho


শশিকলার জন্য ৫০ টাকা মজুরিতে মোমবাতি তৈরির কাজ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



শশিকলার জন্য ৫০ টাকা মজুরিতে মোমবাতি তৈরির কাজ

ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের গভর্নর অল ইন্ডিয়া দ্রাবিড় মুনেত্রা কাজাগাম (এআইএডিএমকে) নেতা এদাপ্পাদি কে পালানিস্বামীকে মুখ্যমন্ত্রী পদে নিয়োগ করায় গতকাল গভর্নরের বাসভবনের সামনে জড়ো হয় সমর্থকরা। তাদের হাতে ছিল দলের প্রয়াত নেত্রী জয়ললিতা জয়ারাম ও বর্তমানে কারারুদ্ধ ভি কে শশিকলার ছবি। ছবি : এএফপি

ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের প্রয়াত মুখ্য মন্ত্রী জয়ললিতার ছায়াসঙ্গী শশিকলা নটরাজন বুধবার কর্ণাটকের রাজধানী বেঙ্গালুরুর আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাঁকে বেঙ্গালুরুর পারাপ্পানা আগ্রাহারা কারাগারে পাঠানো হয়। সেখানে তাঁকে একটি ছোট কক্ষে রাখা হয়েছে।

বরাদ্দ করা হয়েছে একটি ফ্যান, একটি বালিশ, একটি কম্বল ও একটি চাদর। হিসাববহির্ভূত সম্পত্তি রাখার মামলায় সাজা পাওয়া শশিকলাকে আগামী চার বছর এ কারাগারেই কাটাতে হবে। ভারতের সংবাদমাধ্যম জানায়, চেন্নাইয়ের পোয়েস গার্ডেনের বিলাসিতা শশিকলার কাছ থেকে এখন অনেক দূরে। জেলের ছোট কক্ষটি তাঁকে শেয়ার করতে হচ্ছে আরো দুই নারী কয়েদির সঙ্গে। বিছানা করতে হবে তাঁকে সিমেন্টের মেঝেতেই। তাঁকে তিনটি শাড়ি ও ব্লাউজ বরাদ্দ করা হয়েছে। এ ছাড়া জেলখানায় তাঁকে মোমবাতি তৈরির কাজ দেওয়া হয়েছে। এর জন্য তিনি প্রতিদিন ৫০ টাকা করে মজুরি পাবেন। কোনো ছুটির দিন নেই। শশিকলা প্রথম শ্রেণির সুবিধা দাবি করেছেন আদালতে। এ সুবিধার মধ্যে রয়েছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কামরা, টিভি, বোতলজাত জল ও ধ্যানকক্ষ এবং তাঁর সেবায় একজন নারী কারাকর্মী। তবে আদালত জানিয়ে দিয়েছেন, জেল কর্তৃপক্ষ মনে করলে তা দিতে পারে। অবশ্য তাঁর জন্য প্রতিদিন দুটি খবরের কাগজও বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। হিসাববহির্ভূত সম্পত্তি রাখার মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায়েও দোষী সাব্যস্ত হন শশিকলা। সুপ্রিম কোর্ট বাড়তি সময় না দেওয়ায় বুধবার চেন্নাই ছেড়ে বেঙ্গালুরু গিয়ে আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তিনি। তাঁর সঙ্গে আত্মসমর্পণ করেন আত্মীয় সুধাকরণ ও ইলাবরসি। ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে তাঁদের কারাগারে পাঠানো হয়।

জয়ললিতার ছায়াসঙ্গী ছিলেন শশিকলা। জয়ললিতার মৃত্যুর পর শশিকলা তামিলনাড়ুর মুখ্য মন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখছিলেন।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।


মন্তব্য