kalerkantho


শশিকলার বিরুদ্ধে সই জাল করার অভিযোগ, খতিয়ে দেখবেন রাজ্যপাল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের ক্ষমতার লড়াই ক্রমেই জটিল হচ্ছে। এআইএডিএমকে দলের বিবদমান দুই পক্ষই সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের সুযোগ চেয়েছে রাজ্যপাল বিদ্যাসাগর রাওয়ের কাছে।

সাধারণ সম্পাদক শশিকলা নটরাজন বিধায়কদের সই করা সমর্থনপত্র জমা দিয়ে সরকার গড়ার সুযোগ চেয়েছেন। অন্যদিকে তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রী পন্নিরসেলভম কোনো সমর্থনপত্র দেখাতে না পারলেও পাঁচ দিন সময় পেলে গরিষ্ঠতার প্রমাণ দেবেন বলে রাজ্যপালকে জানিয়েছেন।

পন্নিরসেলভম গত বৃহস্পতিবারের বৈঠকে রাজ্যপালকে জানিয়েছেন, শশিকলা অনেক বিধায়কের সই জাল করেছেন। একটি সূত্র জানিয়েছে, রাজ্যপাল পন্নিরসেলভমের এই অভিযোগকে গুরুত্ব দিচ্ছেন। কতজন বিধায়ক স্বেচ্ছায় শশিকলাকে সমর্থন করে স্বাক্ষর দিয়েছেন সেটাও খতিয়ে দেখতে পারেন তিনি। কারণ অভিযোগ রয়েছে, দলের প্রায় সব বিধায়ককেই অজ্ঞাত স্থানে লুকিয়ে রেখেছেন তিনি।

এদিকে শশিকলার পথের কাঁটা গতকাল শুক্রবার আরেকটু বেড়েছে মাদ্রাজ হাইকোর্টের এক নির্দেশে। আদালত পুলিশের কাছে জানতে চেয়েছেন, দুই দিন ধরে ১২০ জনের বেশি বিধায়ক নিখোঁজ কেন? এ বিষয়ে প্রতিবেদন তলব করেছেন আদালত।

১৩৪ জন বিধায়ক এআইএডিএমকের।

শশিকলা প্রথমে দাবি করছিলেন ১৩১ জনের সমর্থনই তাঁর দিকে। তাঁর নির্দেশে গত বুধবার ১২০ জনেরও বেশি বিধায়ককে বিভিন্ন হোটেল ও রিসোর্টে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। দুই দিন ধরে তাঁদের কোনো দেখা মেলেনি। এ পরিস্থিতি নিয়েই গতকাল হাইকোর্টের প্রশ্নের মুখে পড়ে পুলিশ। চেন্নাইয়ের পুলিশ কমিশনারকে তলব করে বিধায়ক বন্দির অভিযোগ সম্পর্কে প্রতিবেদন চান মাদ্রাজ হাইকোর্ট। যেভাবে বিধায়কদের বন্দি করে রাখা হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে, তাতে চেন্নাই পুলিশের প্রতিবেদন শশিকলা শিবিরের পক্ষে অস্বস্তিকর হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবারের সাক্ষাতে রাজ্যপালের কাছে পাঁচ দিন সময় চেয়েছেন পন্নিরসেলভম। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, পন্নিরসেলভম খুব কৌশলেই এ সময় চেয়েছেন। কারণ আগামী সোমবার শশিকলার বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করার কথা সুপ্রিম কোর্টের। এর আগে মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সি দখলের আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে শশিকলা শিবির। অন্যদিকে পন্নির চাইছেন, যেভাবেই হোক সোমবার পর্যন্ত বিষয়টি আটকে দিতে, যাতে শীর্ষ আদালতের রায় শশিকলার বিরুদ্ধে গেলে তিনি তার ফায়দা নিতে পারেন।

এদিকে একের পর এক বিধায়ক পন্নিরসেলভমের দিকে ঝুঁকে পড়ায় সংকটে পড়েছে শশিকলা শিবির। রাজ্যের মসনদ দখলের লড়াইয়ে তাই তারা কংগ্রেসের কাছে ধরনা দিচ্ছে বলে জানা গেছে। সূত্র মতে, রাজ্যে শশিকলা-পন্নিরসেলভম বিরোধ প্রকাশ্যে আসার পরপরই কংগ্রেস অভিযোগ করেছিল, কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি এ রাজ্যে নাক গলাচ্ছে। শশিকলা শিবির কংগ্রেসের সঙ্গে আলোচনা শুরু করে দিয়েছে। সূত্র আরো জানায়, তামিলনাডু প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি এস তিরুনাভুক্কারাসর এবং বিধানসভার দলীয় নেতা কে রামস্বামীকে শুক্রবার নয়াদিল্লিতে তলব করেছে কংগ্রেস হাইকমান্ড। তামিলনাডুর দলীয় বিধায়কদের সঙ্গে এদিন দেখা করার কথা কংগ্রেস সহসভাপতি রাহুল গান্ধীরও।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।


মন্তব্য