kalerkantho


‘অবৈধ’ ইহুদি বসতির বৈধতা দিতে ইসরায়েলে আইন পাস

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



‘অবৈধ’ ইহুদি বসতির বৈধতা দিতে ইসরায়েলে আইন পাস

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট ক্ষমতা গ্রহণের পর পর ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে নতুন ইহুদি বসতি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েই ক্ষান্ত হয়নি ইসরায়েল, দেশটি এবার ফিলিস্তিনিদের ব্যক্তিমালিকানাধীন জমিতে নির্মিত ইহুদি বাড়িগুলোকেও বৈধতা দেওয়ার ব্যবস্থা পাকা করেছে। গত সোমবার ইসরায়েলি পার্লামেন্ট এসংক্রান্ত একটি আইন পাস করেছে, যা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নতুন করে সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

১২০ সদস্যের পার্লামেন্টে নেসেটে গত সোমবার ৬০-৫২ ভোটে ওই আইন পাস হয়। ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরায়েল সরকার অনুমোদিত ইহুদি বসতির বাইরে যেসব ইহুদি বিভিন্ন ফিলিস্তিনির ব্যক্তিগত জমির ওপর বাড়ি বানিয়েছে, সেগুলোকে এ আইনে বৈধতা দেওয়া হচ্ছে। বিনিময়ে ওই ফিলিস্তিনিদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ অথবা অন্যত্র জমি দেওয়া হবে। আন্তর্জাতিক আইনে অবশ্য ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে সব ইহুদি বসতিই অবৈধ গণ্য করা হয়।

ইসরায়েলের এ আইন পাসের মধ্য দিয়ে জমি চুরিকে বৈধতা দেওয়া হলো বলে মন্তব্য করেছে প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশন (পিএলও)। ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংকটের রাজনৈতিক সমাধানের পথ একেবারে রুদ্ধ করে দিতেই এ আইন করা হয়েছে বলে সংগঠনটি মন্তব্য করেছে। এক বিবৃতিতে তারা বলে, ‘ইসরায়েলি বসতির উদ্যোগ শান্তি প্রক্রিয়া ও দ্বিরাষ্ট্র সমাধানের সম্ভাবনা নষ্ট করছে। ’

‘কারো সঙ্গে শত্রুতা নয়’ নীতিতে এগিয়ে চলা তুরস্ক ইসরায়েলের এই আইনকে অগ্রহণযোগ্য আখ্যা দিয়েছে এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবের সঙ্গে আইনটি সাংঘর্ষিক বলে মন্তব্য করেছে। গতকাল মঙ্গলবার তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ফিলিস্তিনিদের ব্যক্তিমালিকানাধীন জমিতে চার হাজার ইহুদি বাড়িসহ বিভিন্ন বসতি অনুমোদনের জন্য ইসরায়েলি পার্লামেন্টে গৃহীত আইনের বিরুদ্ধে আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

’ এ আইন ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের জন্য আলাদা রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মূল ভিত্তিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে বলেও মন্তব্য করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

নেসেটে আইন পাসের পর কট্টর ডানপন্থী জিউয়িশ হোম দলের নেতা বেজালেল স্মোত্রিচ আমেরিকান জনগণের প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘তিনি ছাড়া হয়তো এ আইন পাস করা সম্ভব হতো না। ’ তবে সুপ্রিম কোর্ট চাইলেই এ আইনের ওপর স্থগিতাদেশ দিতে পারেন এবং তেমন সম্ভাবনা শতভাগ বলে জানিয়েছেন ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আভিগ্দর লিবারম্যান। সুপ্রিম কোর্টের আদেশে এর আগে ব্যক্তিমালিকানাধীন ফিলিস্তিনি জমি থেকে ইহুদি বাড়ি উচ্ছেদ করা হয়।

মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়া বিষয়ক জাতিসংঘ দূত নিকোলা ম্লাদেনোভ ইসরায়েলের এমন আইন পাসে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘এতে আরব-ইসরায়েলি শান্তির সম্ভাবনা মারাত্মকভাবে কমে যেতে পারে। ’

সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য