kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আলেপ্পোয় অস্ত্রবিরতি

বেসামরিক লোকদের সরাতে সময় লাগছে : জাতিসংঘ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



নিরাপত্তার কারণে সিরিয়ার আলেপ্পো থেকে সাধারণ মানুষদের সরিয়ে নেওয়ার কার্যক্রম বিলম্বিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘে। এর আগে সংস্থাটি জানিয়েছিল, অস্ত্রবিরতি বলবত্ থাকলে শুক্রবার বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া শুরু করবে তারা।

গত বৃহস্পতিবার সিরীয় বাহিনী আলেপ্পোয় একতরফা যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করে।

গত বৃহস্পতিবার অস্ত্রবিরতি কার্যকর হওয়ার পর সহিংসতা হ্রাস পাওয়া সত্ত্বেও সেখানকার বেসামরিক নাগরিকদের নগরী ছাড়ার আহ্বানে সাড়া দেওয়ার লক্ষণ দেখা যায়নি।

এদিকে রাশিয়া অভিযোগ করেছে, বিদ্রোহীরা পূর্বাঞ্চলের এ নগরী ছাড়তে বেসামরিক নাগরিকদের বাধা দিচ্ছে। অন্যদিকে ন্যাটো প্রধান জেনস স্টলটেনবার্গ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, রাশিয়ার বিমানবাহী একটি রণতরী আলেপ্পোতে হামলায় যোগ দিতে পারে। এটা উত্তর সাগর থেকে যাত্রা শুরু করেছে এবং বর্তমানে ব্রিটেন উপকূলের অদূরে অবস্থান করছে। উত্তর সাগরে ব্রিটিশ যুদ্ধজাহাজগুলো সব সময় রাশিয়ার রণতরীর অনুসরণ করে চলেছে। অনেকে এ পরিস্থিতিকে অনেকটা ইঁদুর-বিড়াল খেলার সঙ্গে তুলনা করেছেন।

সিরিয়ার আলেপ্পো নগরীর বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত পূর্বাঞ্চল থেকে বেসামরিক নাগরিক সরিয়ে নিতে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় সেখানে একতরফা অস্ত্রবিরতি শুরু হয়েছে। তবে এর কিছুক্ষণ পর একটি ক্রসিং পয়েন্টের চারপাশে গোলাগুলি হয়েছে। সরকারি সংবাদ সংস্থা সানার খবরে বলা হয়েছে, মানবিক অস্ত্রবিরতি বাধাগ্রস্ত করতে সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো ওই এলাকাকে নিশানা করছে। তবে বিকেল নাগাদ সংঘর্ষ প্রশমিত হয় এবং পূর্বাঞ্চল শান্ত হয়ে আসে।

বৃহস্পতিবার সিরিয়ার সেনাবাহিনী আলেপ্পোর চারপাশে ঘুরে ঘুরে লাউডস্পিকারে বেসামরিক নাগরিকদের অস্ত্রবিরতির সুযোগ কাজে লাগিয়ে নগরী ত্যাগ করার আহ্বান জানায়।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রচারিত বিভিন্ন এক্সিট করিডরের লাইভ ভিডিওতে দেখা যায়, ফাঁকা রাস্তাগুলোতে অ্যাম্বুল্যান্স ও বাস দাঁড়িয়ে রয়েছে।

সরকার নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোর পশ্চিমাঞ্চলে থেকে এএফপির এক আলোকচিত্রী জানান, আহত আট ব্যক্তি লড়াইয়ের মধ্যেও বুস্তান আল-কসর ক্রসিং হয়ে নগরী ছেড়েছে।

তবে এএফপির অন্য সংবাদদাতারা পূর্বাঞ্চলের চারটি ক্রসিং পয়েন্ট ঘুরে দেখেছেন এবং তাঁরা ওই সব ক্রসিং হয়ে লোকজনকে এলাকা ত্যাগ করতে দেখেননি।

২০১১ সালের মার্চে সিরিয়ায় সংঘাত শুরু হওয়ার পর এ পর্যন্ত তিন লাখ মানুষ নিহত হয়েছে এবং আলেপ্পোর সহিংসতাকে অন্যতম সবচেয়ে ভয়ংকর যুদ্ধ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। নগরীতে প্রায় আড়াই লাখ লোক এখনো আটকা পড়ে রয়েছে। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য