kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত সরে দাঁড়াচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি) থেকে নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এ-সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাজ ইতিমধ্যেই শুরু করা হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিচারমন্ত্রী এ কথা জানিয়েছেন। আন্তর্জাতিক এই আদালত থেকে কোনো দেশের সরে যাওয়ার প্রথম ঘটনা এটি। এই আদালতের বিরুদ্ধে আফ্রিকার দেশগুলোর নেতাদের টার্গেট করে কার্যক্রম পরিচালনা অভিযোগ হয়ে আসছিল অনেক দিন ধরেই। দক্ষিণ আফ্রিকার এই ঘোষণা আইসিসির জন্য বড় এক আঘাত বলে মনে করা হচ্ছে।

গত বছর দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে আফ্রিকা ইউনিয়নের শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে গিয়েছিলেন সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশির। আইসিসিতে বশিরের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের মামলা রয়েছে এবং আদালত তাঁকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানাও জারি করে রেখেছেন। জোহানেসবার্গের সম্মেলনের সময় ওই আদালত দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন বশিরকে গ্রেপ্তার করার জন্য। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার তাতে অস্বীকৃতি জানায়। এ নিয়ে আইসিসির সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকার মনোমালিন্য দেখা দেয়। সে সময়ে সরকারের ওই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে দক্ষিণ আফ্রিকারই একটি আদালত।  

আইসিসি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেওয়ার বিষয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিচারমন্ত্রী মাইকেল মাসুথা প্রিটোরিয়ায় সাংবাদিকদের বলেন, আইসিসি থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়ে সরকার পার্লামেন্টে আইন প্রণয়ন করবে।

বশিরের সফরের ঘটনায় গত মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বোচ্চ আদালত প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার সরকারকে ‘অসম্মানজনক আচরণের’ জন্য অভিযুক্ত করে। তা ছাড়া বশিরকে আটক না করার ঘটনাকে বেআইনিও ঘোষণা করা হয়। আদালতের ওই রায়ের বিরুদ্ধে সরকারের আগামী মাসে সাংবিধানিক আদালতে যাওয়ার কথা রয়েছে। তার আগে আইসিসি থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণায় ওই পদক্ষেপ আর নেওয়া নাও হতে পারে।

বশিরের বিরুদ্ধে সুদানের দারফুরে সংঘর্ষে নৃশংসতা চালানো ও যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ রয়েছে আইসিসিতে। বশির বরাবরই তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

বিশ্বের নৃশংস সব অপরাধের বিচারের জন্য ২০০২ সালে আইসিসি গঠিত হয়। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য