kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট বললেন

খোজাকরণ আইনে যৌন অপরাধ নির্মূল হবে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



শিশুদের যৌন নির্যাতনকারীদের রাসায়নিক দিয়ে খোজা করার যে নীতি ইন্দোনেশিয়া নিয়েছে তাতে যৌন অপরাধ পুরোপুরি নির্মূল হতে পারে। এ কথা বলেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো।

বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ইন্দোনেশিয়া মানবাধিকারকে সম্মান করে, তবে যৌন নির্যাতনকারীদের শাস্তির বিষয়ে আপস করবে না।

ইন্দোনেশিয়ায় ১৪ বছর বয়সী এক মেয়েকে গণধর্ষণ ও হত্যার ঘটনার পর চলতি মাসের শুরুর দিকে শিশু যৌন নিপীড়নকারীদের রাসায়নিক দিয়ে খোজা করার একটি আইন পাস করে সরকার। পার্লামেন্টে আইনটি নিয়ে তুমুল বিতর্ক হয়।

অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ অপসারণ না করে ওষুধের মাধ্যমে ব্যক্তির কামশক্তি ও ইচ্ছা রহিত করাই হচ্ছে রাসায়নিক দিয়ে খোজা করার পদ্ধতি।

উইদোদো বলেন, ‘আমার অভিমত হচ্ছে, আমরা যদি ধারাবাহিকভাবে রাসায়নিক দিয়ে খোজাকরণ শাস্তি চালিয়ে যেতে পারি তবে তা যৌন অপরাধ কমিয়ে আনবে এবং একসময় এটি নির্মূল হয়ে যাবে। ’

ইন্দোনেশিয়ার চিকিৎসক পরিষদ জানিয়েছে, তাদের সদস্যদের চিকিৎসার নীতিবিরুদ্ধ এ ধরনের কোনো প্রক্রিয়ায় জড়িত হওয়া ঠিক হবে না। তা ছাড়া খোজাকরণের মাধ্যমে শিশু যৌন নিপীড়ন বন্ধ করা সম্ভব হবে না বলে তারা মনে করে। তাদের মতে, তিন বছর কারাদণ্ডে দণ্ডিত ব্যক্তিকে রাসায়নিকভাবে খোজা করার পর কারামুক্ত হয়ে তিনি কোনো চিকিৎসকের কাছে যেতে পারেন এবং হরমোন চিকিৎসার মাধ্যমে পুনরায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে পারেন। চিকিৎসক পরিষদের নীতি কমিটির চেয়ারম্যান প্রিজো সিদিপ্রাতোমো বলেন, ‘আমাদের চিকিৎসানীতি সমুন্নত রাখতে হবে। আপনি যখন একজন চিকিৎসক হবেন তখন মানুষের কোনো ক্ষতি হয় এমন কিছু করবেন না বলে শপথ নিতে হবে। এই আইন ক্ষতিকর এবং নবাধিকারবিরোধী। ’ সূত্র : বিবিসি।


মন্তব্য