kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইয়েমেনে ৭২ ঘণ্টা যুদ্ধবিরতি ঘোষণা জাতিসংঘের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ইয়েমেনের গৃহযুদ্ধ বন্ধের চেষ্টায় নতুন করে ৭২ ঘণ্টা যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে জাতিসংঘ। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে এই যুদ্ধবিরতি শুরু হবে বলে সংস্থাটি সোমবার জানিয়েছে।

এই যুদ্ধবিরতিতে সমর্থন জানিয়েছে প্রেসিডেন্ট আবদ্রাবো মনসুর হাদির সরকার ও তাঁর সহায়ক শক্তি সৌদি আরব। তবে এ ব্যাপারে এখনো কোনো কিছু জানায়নি ইরান সমর্থিত বিদ্রোহী হুতি বাহিনী।

সোমবার ইয়েমেনে জাতিসংঘের বিশেষ কূটনীতিক ইসমাইল উলদ চেইখ আহমদ এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এপ্রিলে প্রথমবারের মতো যুদ্ধবিরতি হয়েছিল। এবার দ্বিতীয়বারের মতো প্রাথমিকভাবে ১৯ অক্টোবর থেকে ৭২ ঘণ্টার জন্য যুদ্ধবিরতি হচ্ছে। পরিস্থিতি অনুযায়ী তা বাড়তেও পারে।

ইয়েমেনের উৎখাত হওয়া প্রেসিডেন্ট আলী আব্দুল্লাহ সালেহের সমর্থনে হুতি বিদ্রোহীরা ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে রাজধানী সানা দখল করে নিলে দেশটিতে গৃহযুদ্ধ ব্যাপক আকারে শুরু হয়। ২০১৫ সালের মার্চে এই সংঘর্ষে সৌদি আরব জড়িয়ে পড়লে তা আরো বিস্তৃতি পায়। জাতিসংঘের তথ্য মতে লড়াইয়ে এ পর্যন্ত ছয় হাজার ৯০০ জন নিহত হয়েছে, আহত হয়েছে ৩৫ হাজার মানুষ। যুদ্ধের ভয়াবহতায় অন্তত ৩০ লাখ মানুষ স্থানচ্যুত হয়েছে। মানবিক বিপর্যয়ের কারণে সাধারণ নাগরিকদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

ইয়েমেনে ইউনিসেফের প্রতিনিধি মোহাম্মদ আল আসাদি বলেন, ইয়েমেনের এক কোটি শিশুর পানি, খাবার, ওষুধ, সামাজিক নিরাপত্তা এবং সাধারণ সেবা দরকার। এ রকম পরিস্থিতিতে রবিবার যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও জাতিসংঘের কূটনীতিকরা সব পক্ষের প্রতি ইয়েমেনে যুদ্ধবিরতি ঘোষণার আহ্বান জানিয়েছেন।

ইয়েমেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মালেক আল মেখলাফি যুদ্ধবিরতির ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, যদি বিদ্রোহীরা সম্মত হয় তাহলে যুদ্ধবিরতির মেয়াদ বাড়ানো হবে, যুদ্ধবিরতি পর্যবেক্ষণ কমিটি কার্যকর করা হবে, মাসের পর মাস ধরে অবরুদ্ধ থাকা তায়েজে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনা হবে এবং নির্বিঘ্নে মানবিক সহায়তা দেওয়ার কাজ করা হবে।

জাতিসংঘের ঘোষণার আগে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল জুবায়ের বলেন, যদি বিদ্রোহীরা যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্তকে সম্মান জানায় তাহলে তারা এর প্রতি সমর্থন জানাবে। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য