kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বান কি মুনের সফরের মধ্যেই ত্রাণ লুট

হাইতিতে আরো সাহায্য পাঠানোর আহ্বান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



হাইতিতে আরো সাহায্য পাঠানোর আহ্বান

জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনের হারিকেন ম্যাথিউর আঘাতে বিধ্বস্ত হাইতি পরিদর্শনকালে ত্রাণের ট্রাক লুটের ঘটনা ঘটেছে। মুন জানিয়েছেন, লেস কায়েস এলাকায় তিনি একটি লুটের ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছেন।

হাইতিকে তিনি আরো বেশি ত্রাণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। পাশাপাশি অন্যান্য দেশকেও হাইতিতে আরো সাহায্য পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছেন। ম্যাথিউর আঘাতে দেশটিতে ৯ শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে।

৪ মাত্রার হারিকেন ম্যাথিউ হাইতির ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়ার পর সেখানে প্রায় এক লাখ ২০ হাজার বাড়িঘর ধ্বংস হয়ে যায় বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, হাইতিতে ১৪ লাখেরও বেশি মানুষের জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণ প্রয়োজন। অনেক পরিবার, যাদের শস্য এবং পানির সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে, তাদের কাছে এখনো ত্রাণ সাহায্য না পৌঁছানোয় উত্তেজনা আরো বাড়ছে। কিছু এলাকায় জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হতে শুরু করলেও এখনো অনেক এলাকায় বিদ্যুৎ নেই এবং অনেক এলাকায় যাতায়াত করা এখনো বেশ দুরূহ।

দেশটিতে কলেরা ছড়িয়ে পড়ারও আশঙ্কা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে কলেরায় মৃত্যুর ঘটনাও বৃদ্ধি পেয়েছে। পানিবাহিত এ রোগটি হাইতিতে প্রথম ছড়ায় ২০১০ সালের ভূমিকম্পের পর জাতিসংঘের নেপালি শান্তিরক্ষী বাহিনীর মাধ্যমে। ওই সময় কলেরায় প্রায় ১০ হাজার মানুষ মারা যায়।

বান কি মুনের সফরের সময় লেস কায়েসে মানবিক ত্রাণবাহী ট্রাক লুটের ঘটনা ঘটে গত শনিবার। প্রায় ১০০ জন উত্তেজিত লোক ট্রাকবহরে হামলা চালালে পুলিশ ও জাতিসংঘ শান্তিরক্ষীরা তাদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে।

এদিন সেখানে দেওয়া বক্তব্যে মুন বলেন, ‘জরুরি সাহায্যের জন্য যারা অপেক্ষা করছে তাদের অধৈর্য এবং ক্ষুব্ধ হওয়ার কারণ আমরা বুঝি। দ্রুত সাহায্য আনার জন্য আমরা যতটা সম্ভব করছি। ’ মুন হাইতির প্রধানমন্ত্রী অ্যানেক্স জ্যঁ চার্লসকে সঙ্গে নিয়ে হেলিকপ্টারে করে দুর্গত এলাকা ঘুরে দেখেন। তিনি বলেন, ‘সব কিছু ধ্বংস হয়ে গেছে দেখে আমি অত্যন্ত, অত্যন্ত দুঃখিত। কিন্তু বিশ্বের লোকজন আপনাদের পাশে দাঁড়াবে। ’ পরে রাজধানী পোর্ট অব প্রিন্সে সাংবাদিকদের সামনে হাইতির এমন পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক মহলের উদাসীনতায় হতাশা প্রকাশ করেন মুন। তিনি বলেন, ‘আমি আশা করছি বড় বড় দাতা দেশগুলো হাইতির দিকে তাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেবে। ’ সূত্র : বিবিসি।


মন্তব্য