kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইয়েমেনে জানাজায় ‘ভুল করে’ হামলা চালায় সৌদি জোট

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন আরব সামরিক জোট গত ৮ অক্টোবর ভুল করে ইয়েমেনে এক ব্যক্তির জানাজায় বিমান হামলা চালিয়েছিল বলে স্বীকার করেছে। এ-সংক্রান্ত তদন্ত শেষে গতকাল শনিবার এমন স্বীকারোক্তি দেয় সৌদি জোট।

ইয়েমেনে শিয়া মতাবলম্বী হুতি বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত রাজধানী সানায় সৌদি জোটের ওই হামলায় কমপক্ষে ১৪০ জন নিহত ও কমপক্ষে সোয়া ৫০০ মানুষ আহত হয়। আহতদের মধ্যে ৩০০ জনের বেশি ব্যক্তির অবস্থা আশঙ্কাজনক।

প্রথমে ওই হামলার দায় অস্বীকার করে সৌদি সরকার। পরে আন্তর্জাতিক নেতা ও মানবাধিকার সংগঠনগুলোর প্রচণ্ড সমালোচনা, সেই সঙ্গে ঘনিষ্ঠ পশ্চিমা মিত্র যুক্তরাষ্ট্রের তীব্র প্রতিক্রিয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনা অনুসন্ধানে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘হামলা ও হামলার প্রক্রিয়া সম্পর্কে জোটের নীতির লঙ্ঘন ঘটার কারণে এবং ভুল তথ্যের কারণে জোটের একটি যুদ্ধবিমান ভুলবশত ওই স্থানে (সানায় জানাজা চলাকালে) হামলা চালায়, যার ফলে বেসামরিক নাগরিকদের হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। ’ এক ঊর্ধ্বতন হুতি নেতার বাবার জানাজায় ওই হামলা চালানো হয়।

ভুল তথ্যের উৎস সম্পর্কে তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি সমর্থিত ইয়েমেনি প্রেসিডেন্টের জেনারেল চিফ অব স্টাফের সঙ্গে সম্পর্কিত একটি উৎস থেকে সানায় সশস্ত্র হুতি বিদ্রোহীদের জড়ো হওয়ার তথ্য পাওয়া যায়। তথ্য দানকারী আরো জানায়, সেখানে আন্তর্জাতিক সমর্থনপ্রাপ্ত সরকারের সেনাবাহিনীর ওপর হুতিরা হামলা চালাতে যাচ্ছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে ইয়েমেনের এক বিমানঘাঁটি থেকে ওই বিমান হামলা পরিচলনায় সহায়তা করা হয়। এ হামলার আগে সৌদি সামরিক জোটের অনুমতি নেওয়া হয়নি এবং জোট নীতিমালা অনুসরণ করে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

সৌদি জোটের দাবি মতে ‘ভুল করে চালানো’ বিমান হামলাটি ছিল গত দেড় বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ। ওই হামলায় গুরুতর আহতদের মধ্য থেকে ১১৫ জনকে চিকিৎসার জন্য গতকাল অন্যত্র নেওয়া হয়েছে। হুতি পরিচালিত সরকারের ডেপুটি স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসের আওজালি জানান, এই প্রথমবারের মতো আহতদের চিকিৎসার জন্য তাদের সানার বাইরে নেওয়া হচ্ছে। আহতদের সরিয়ে নিতে গতকাল সানায় পৌঁছায় ওমানের একটি বিমান। প্রসঙ্গত, ইয়েমেনে গত বছর মার্চ থেকে পরিচালিত সৌদি সামরিক জোটের হামলায় যোগ না দেওয়া একমাত্র উপসাগরীয় দেশ হলো ওমান। দেশটি এর আগেও সানা থেকে বিদেশি নাগরিক ও হুতিদের হাতে বন্দি থাকা ব্যক্তিদের উদ্ধারে তাদের বিমান পাঠিয়েছিল। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য