kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সিরিয়া সংকট নিয়ে এবার সুইজারল্যান্ডে আলোচনা

আলেপ্পো বিদ্রোহীমুক্ত করবই : আসাদ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সিরিয়া সংকট নিয়ে এবার সুইজারল্যান্ডে আলোচনা

সিরিয়ায় সংঘাত বন্ধে নতুন করে কূটনৈতিক আলোচনা শুরু হয়েছে সুইজারল্যান্ডে। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর এটাই প্রথম সিরিয়া প্রসঙ্গে আনুষ্ঠানিক আলোচনা।

সিরিয়ায় আলেপ্পোয় সহিংসতা ও হামলা জোরদার হওয়ার প্রেক্ষাপটে সুইজারল্যান্ডের লাওসানে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এবং জাতিসংঘ ও আঞ্চলিক দেশগুলোর শীর্ষ কূটনীতিকরা গতকাল শনিবার আলোচনায় বসেন।

তবে আলোচনা শুরুর আগে শুক্রবার ল্যাভরভ রাশিয়ার একটি সংবাদ সংস্থাকে যে কথা বলেন তাতে আলোচনার ফল নিয়ে আশা ক্ষীণ হয়ে এসেছে। তিনি বলেন, ‘সুইজারল্যান্ডের এ আলোচনায় বিশেষ কিছু প্রত্যাশা করছেন না তিনি। এ ছাড়া ফ্রান্সের এক কূটনৈতিক সূত্রও বলেছে, এর আগের চেষ্টাগুলোর ফলাফল আপনারা দেখেছেন। তাই খোলাখুলিভাবে বলছি, আমিও আজকের (গতকাল) আলোচনার ফল নিয়ে সন্দিহান। ’ তিনি বলেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও অন্য পক্ষগুলো ৯ সেপ্টেম্বরের অস্ত্রবিরতি কার্যকর করতে ব্যর্থ হয়েছেন কারণ বিদ্রোহী ও বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে আল-কায়েদা প্রভাবিত আল-নুসরা ফ্রন্টের পার্থক্য করতে পারেননি প্রেসিডেন্ট আসাদ ও অন্যরা।

লাওসানের বৈঠকে কেরি ও ল্যাভরভের সঙ্গে জাতিসংঘে সিরিয়াবিষয়ক দূত স্ট্যাফান ডি মিসতুরা এবং তুরস্ক, সৌদি আরব ও কাতারের শীর্ষ কূটনীতিকরা অংশ নিচ্ছেন। তুরস্ক, সৌদি আরব ও কাতার সিরিয়ার বিরোধী বাহিনীর সমর্থক।

এদিকে সিরিয়ার আসাদ সরকারের সমর্থক ইরান বলেছে, তাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফও এতে যোগ দিচ্ছেন। এরপর কেরি লন্ডন যাবেন। তিনি রবিবার সেখানে ব্রিটেন, জার্মানি ও ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

ব্রিটেনভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, আলেপ্পোর বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত পূর্ব অংশে সিরিয়া ও রাশিয়া বোমা হামলা তীব্রতর করেছে। সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ ঘোষণা করেছেন, অবরুদ্ধ আলেপ্পো শহর বিদ্রোহীমুক্ত করবেনই তিনি। এরপর শহরটি থেকে সন্ত্রাসীদের তুরস্কে ফেরত পাঠানো যাবে। রাশিয়ার ‘কমসোমোলস্কায়া প্রাভদা’ পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বলেন, আলেপ্পো দখল করতে পারলে তা সিরিয়ার যুদ্ধে জয়ী হতে সহায়ক হবে। তিনি বলেন, আলেপ্পো হবে ‘স্প্রিংবোর্ড’, যেখান থেকে তাঁরা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যেতে পারবেন।

সাক্ষাৎকারে আসাদ বলেন, ‘আলেপ্পো বিদ্রোহীমুক্ত করতেই হবে এবং সেখান থেকে ‘সন্ত্রাসীদের’ তুরস্কে ঠেলে দিতে হবে। ’

প্রসঙ্গত, দামেস্ক অভিযোগ করে আসছে, তুরস্ক ওই বিদ্রোহীদের পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে। আরো কয়েকটি উপসাগরীয় এবং পশ্চিমা দেশও বিদ্রোহীদের সমর্থন করছে। সিরিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম এই শহরের একটি অংশের নিয়ন্ত্রণ সরকারি বাহিনীর হাতে এবং বাকি অংশ বিদ্রোহীদের হাতে। এ শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সিরিয়া গৃহযুদ্ধে সবচেয়ে তীব্র লড়াই চলছে। সূত্র : আল-জাজিরা, এএফপি


মন্তব্য