kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ম্যাথিউ যুক্তরাষ্ট্রেও কেড়ে নিয়েছে ১০ প্রাণ

হাইতিতে দেখা দিয়েছে কলেরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



হাইতিতে দেখা দিয়েছে কলেরা

হারিকেন ম্যাথিউর প্রভাবে সৃষ্ট জলোচ্ছ---াসে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার ফ্ল্যাগলার সমুদ্রসৈকত সংলগ্ন রাস্তা ভেঙে যায়। শনিবার তোলা ছবি। ছবি : এএফপি

হারিকেন ম্যাথিউর আঘাতে হাইতির দক্ষিণাঞ্চল দৃশ্যত গুঁড়িয়ে যাওয়ার পর এখন সেখানে দেখা দিয়েছে কলেরা। কলেরায় আক্রান্ত হয়ে ইতিমধ্যে ১৩ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

ঝড়ের আঘাতে বিধ্বস্ত এলাকায় পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থাও পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে। বানের পানিতে দূষিত হয়ে গেছে খাবার পানির সব আধার। ফলে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে কলেরার মতো পানিবাহিত রোগ। হারিকেন থেকে বেঁচে যাওয়া মানুষ এখন এ রোগের কবলে পড়ে মৃত্যুর হুমকির মধ্যে পড়েছে। এখনো সেখানে পৌঁছানো চিকিৎসকের সংখ্যা অপ্রতুল বলে জানিয়েছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম।

দেশটির উপকূল বরাবর গত বুধবার আঘাত করা ওই ঝড়ে প্রায় ৯০০ মানুষ মারা গেছে। দরিদ্র দেশটির দক্ষিণ উপকূলের কয়েকটি শহরের ৯০ শতাংশ স্থাপনাই মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। কোথাও কোথাও শতভাগ স্থাপনাই গুঁড়িয়ে গেছে। প্রচণ্ড শক্তির ম্যাথিউ হাইতিতে তাণ্ডব চালানোর পর যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পূর্ব উপকূল বরাবর ধ্বংসের স্বাক্ষর রেখে এখন দুর্বল হয়ে পড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা-জর্জিয়ার পর শনিবার সাউথ ক্যারোলাইনায় গিয়ে ঝড়টি শান্ত হয়। তবে এর আগে ম্যাথিউর ছোবলে যুক্তরাষ্ট্রেও নিহত হয়েছে ১০ জন।

হাইতির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ঝড়ের পরে কমপক্ষে ৬২ জন কলেরায় আক্রান্ত হয়েছে। তাদের চিকিৎসা দিতে কিছু নার্স থাকলেও কোনো ডাক্তার নেই। ২০১০ সালে ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর হাইতিতে জাতিসংঘের যে শান্তিরক্ষীরা রয়েছেন, তাঁদের জন্যও কলেরা হুমকি হয়ে দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক পার্টনার্স ইন হেলথের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ২০১২ সালের হারিকেন স্যান্ডির পর হাইতিতে কলেরার যে প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছিল তা শেষ হয়নি। এরই মধ্যে নতুন করে দূষিত পানির কারণে এর প্রকোপ আরো বেড়ে যেতে পারে। সূত্র : রয়টার্স, দ্য গার্ডিয়ান।


মন্তব্য