kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইরানে আহমাদিনেজাদকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী না হতে খামেনির নির্দেশ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ইরানে আহমাদিনেজাদকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী না হতে খামেনির নির্দেশ

আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি

ইরানের কট্টরপন্থী সাবেক প্রেসিডেন্ট আহমাদিনেজাদকে আগামী বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী না হতে বলেছেন দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। এর মধ্য দিয়ে বর্তমান ‘বাস্তববাদী’ প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে তাঁর সম্ভাবনা কার্যত শেষ হয়ে গেল।

গতকাল সোমবার ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ইরনা এ কথা জানিয়েছে।

আহমাদিনেজাদ আগামী মে মাসে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়ার কোনো পরিকল্পনা এখন পর্যন্ত ঘোষণা করেননি। কিন্তু কয়েক মাস ধরে তাঁর বিভিন্ন বক্তৃতা-বিবৃতির ফলে রাজনীতিতে তাঁর ফেরার গুঞ্জন জোরালো হচ্ছিল।

বিশ্লেষকরা মনে করেন, দুই দফায় আট বছর ক্ষমতায় থাকাকালে নিয়মিতই পশ্চিমা দেশের বিরুদ্ধে কথা বলতেন এই কট্টর জনপ্রিয় নেতা। আগামী নির্বাচনে ইরানের রক্ষণশীলদের ক্ষমতায় ফিরে আসার সবচেয়ে ভালো সুযোগ রয়েছে। তবে সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির নির্দেশনার কারণে তাঁর এমন সম্ভাবনা শেষ হয়ে গেল।

খামেনি বলেন, ‘তিনি (আহমাদিনেজাদ) আমার কাছে এসেছিলেন। আমি তাঁকে না দাঁড়াতে (নির্বাচনে) বলেছি। আমার মনে হয়েছে এটি (প্রার্থী হওয়া) তাঁর আগ্রহের ব্যাপার নয়। এটি দেশের বিষয়। এটি (তাঁর প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি) দেশে মারাত্মক বিরোধিতা ও বিভাজন তৈরি করবে। আমি মনে করি দেশের জন্য তা ক্ষতিকর হবে। ’

বর্তমান প্রেসিডেন্ট রুহানির জনপ্রিয়তা অনেক তুঙ্গে। বিশেষ করে গত বছর বিশ্ব শক্তি দেশটির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার পর থেকে তাঁর জনপ্রিয়তা অনেক বেড়েছে। এ অবস্থায় আহমাদিনেজাদই কেবল রুহানির ভালো প্রতিদ্বন্দ্বী হতে পারতেন। আহমাদিনেজাদ ২০০৫ সালে প্রথম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। দ্বিতীয় দফায় ২০০৯ সালে তিনি নির্বাচনে জয়লাভ করলেও ওই নির্বাচন বিতর্কিত বলে দাবি করে বিরোধীরা। যাতে ইরানে বিক্ষোভ হয় এবং অনেক হতাহতের ঘটনা ঘটে।

সূত্র : রয়টার্স।


মন্তব্য