kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


লিবিয়ায় শরণার্থী নগরী গড়তে বললেন হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ইউরোপে অভিবাসী ও শরণার্থীদের প্রবেশের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর ওরবান। তিনি বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) উচিত ইউরোপে ঢোকার আগে আফ্রিকান অভিবাসনপ্রত্যাশীদের প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য লিবিয়ার উপকূলে একটি ‘বড় শরণার্থী নগরী’ গড়ে তোলা।

আর এই শিবির পরিচালনা করবে লিবিয়া সরকার। শনিবার অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় ইউরোপ ও বলকান নেতাদের এক সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ওরবান বলেন, ইইউয়ের উচিত তাদের বাইরের সীমান্তের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেওয়া। তিনি জানান, তিনি অস্ট্রিয়ার দক্ষিণাঞ্চলের সীমান্ত বন্ধ করে দিয়ে সেখানে ধারালো তারের বেড়া দিয়েছেন এবং পাহারায় ডগ স্কোয়াড নিয়োজিত করেছেন।

ভিক্টর ওরবান লিবিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবং লিবিয়ান লিবারেশন আর্মিকে পশ্চিমা সহায়তা দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। লিবিয়ান লিবারেশন আর্মি এর আগে ফ্রি লিবিয়ান আর্মি নামে পরিচিত ছিল।

ভিয়েনার বৈঠকে জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল বলছেন, যেসব শরণার্থী ইউরোপে থাকতে অনুমতি পাবে না তাদের নিরাপদে নিজের দেশে ফিরিয়ে দিতে তৃতীয় কোনো দেশের সহায়তা প্রয়োজন। এ জন্য অচিরেই আফ্রিকার দেশগুলোসহ এবং পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সঙ্গে চুক্তি করা হবে বলে জানান তিনি। বৈঠকে ইউরোপে যাওয়ার যত সীমান্তপথ রয়েছে সেগুলোর ওপর নিয়ন্ত্রণ বাড়ানোরও সিদ্ধান্ত হয়।

চলতি বছর ইউরোপে যাওয়ার আশায় তিন লাখ অভিবাসনপ্রত্যাশী ভূমধ্যসাগর অতিক্রম করে। এর মধ্যে সাড়ে তিন হাজার শরণার্থীর মৃত্যু হয়েছে। সূত্র : বিবিসি, এএফপি।


মন্তব্য