kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সিরিয়ায় আবারও ত্রাণবহর পাঠাচ্ছে জাতিসংঘ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সিরিয়ায় আবারও ত্রাণবহর পাঠাচ্ছে জাতিসংঘ

সিরিয়ায় ফের ত্রাণবাহী গাড়িবহর পাঠাচ্ছে জাতিসংঘ। জাতিসংঘের মানবিক সাহায্যবিষয়ক সংস্থা (ওসিএইচএ) গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা সিরিয়ায় ত্রাণবাহী গাড়িবহর পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

গত সোমবার জাতিসংঘের একটি ত্রাণবহরে বিমান হামলার পর ত্রাণ কার্যক্রম স্থগিত করেছিল সংস্থাটি। সিরিয়ায় বিবদমান গ্রুপগুলো অস্ত্রবিরতি অব্যাহত রাখবে বলেও আশা প্রকাশ করে সংস্থাটি।

এদিকে সিরিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম নগরী আলেপ্পোর আশপাশে বিদ্রোহীদের দখলে থাকা এলাকাগুলোয় বুধবার রাতভর বিমান হামলা চালানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রচণ্ড লড়াই চলেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। বিমান হামলার কারণে বড় ধরনের অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।

জাতিসংঘের সিরিয়াবিষয়ক দূত স্ট্যাফান ডি মিস্টুরা বলেছেন, ত্রাণবাহী ট্রাকগুলো কোনো কোনো এলাকায় ‘খুব সতর্কতার সঙ্গে’ ফের ত্রাণ তত্পরতা শুরু করেছে। ওসিএইচএর মুখপাত্র জেনস লায়েরক এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আজ (বৃহস্পতিবার) আমরা দামেস্কের অবরুদ্ধ এলাকায় জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণবাহী একটি গাড়িবহর পাঠাচ্ছি। মানবিক অপরিহার্যতা বিবেচনায় এসব ত্রাণ পাঠানো হচ্ছে। ’

বুধবার যুক্তরাষ্ট্র চলমান অস্ত্রবিরতি অব্যাহত রাখতে সিরিয়ার প্রধান প্রধান এলাকায় কোনো ধরনের বিমান উড্ডয়ন না করার জন্য আহ্বান জানায়। নিউ ইয়র্কে আন্তর্জাতিক শক্তিধর রাষ্ট্রগুলোর এ ব্যাপারে গতকাল এক বৈঠকে মিলিত হওয়ার কথা ছিল। আন্তর্জাতিক সিরিয়ান কনট্র্যাক্ট গ্রুপে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র উভয় দেশই রয়েছে। মিস্টুরা বলেন, এখনো চুক্তির আশা রয়েছে। কেন না এর বিকল্প হচ্ছে হানাহানি। তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার দায়িত্ব রয়েছে। ’

এর আগে জাতিসংঘে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেন, ‘সিরিয়ার ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে রয়েছে। ’ তিনি বলেন, সোমবারের হামলার ফলে এই চলমান অস্ত্রবিরতি চুক্তির শর্ত পূরণের ব্যাপারে রাশিয়া ও সিরীয় সরকারের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। জাতিসংঘের ত্রাণবহরে ওই ভয়াবহ বিমান হামলার জন্য রুশ বিমান দায়ী বলে বিশ্বাস করেন। কিন্তু রাশিয়া  অভিযোগ নাকচ করে। সূত্র : এএফপি।

 


মন্তব্য